ফারদিন হত্যায় র‍্যাব-ডিবির তথ্যে বিভ্রান্তি

খুনিদের গ্রেপ্তার করতে না পারায় শিক্ষার্থীদের ক্ষোভ

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:২৯ পিএম


অডিও শুনুন

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী ফারদিন নুর পরশ হত্যাকাণ্ডের তদন্তের দ্রুত অগ্রগতির দাবি করেছেন তার সহপাঠীরা। ফারদিন হত্যায় র‍্যাব এবং ডিবির আলাদা তথ্যে বিভ্রান্তি হচ্ছেন পরিবার ও বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা। তাই ছেলে হত্যার বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন ফারদিনের বাবা নুর উদ্দিন রানা।

মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) দুপুর ১টায় বুয়েটের শহীদ মিনারের সামনে ফারদিন হত্যাকাণ্ডের দ্রুত তদন্তের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।  

এসময় শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, গত ৪ নভেম্বর বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফারদিন নিখোঁজ হন। পরে ৭ নভেম্বর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরের দিন ৮ নভেম্বর ফারদিনের ময়নাতদন্ত শেষে চিকিৎসক জানান, তার বুকে এবং মাথায় অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। 

আরও পড়ুন>>ফারদিন হত্যা : বান্ধবী বুশরার জামিন নামঞ্জুর

তারা বলেন, ফারদিনের মরদেহ উদ্ধারের প্রায় ১ মাস অতিবাহিত হতে যাচ্ছে, কিন্তু এখন পর্যন্ত এই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন হয়নি ও হত্যাকারীরা চিহ্নিত হয়নি। আমরা প্রথম থেকেই এই হত্যাকাণ্ডের দ্রুত তদন্তের জন্য দাবি জানিয়ে আসছি। তবে দুঃখজনকভাবে আজ ফারদিনের মরদেহ উদ্ধারের ২৯তম দিনে এসেও আমরা জানি না কী কারণে আমাদের বন্ধুকে হত্যা করা হলো। তদন্তের সময় দীর্ঘায়িত হওয়ায় আমরা বুয়েট শিক্ষার্থীরা আশাহত।

তারা আরও বলেন, ইতোমধ্যে এই মামলার তদন্তকারী সংস্থা ডিবি এবং ছায়া তদন্তকারী সংস্থা র‍্যাবের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে আসা পরস্পরবিরোধী তথ্য দেখে আমরা বিভ্রান্ত।  আমরা বুয়েট শিক্ষার্থীরা ফারদিনের খুনীদের শনাক্ত করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে গ্রেফতার এবং তাদের বিচারের আওতায় আনার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।

আরও পড়ুন>>চনপাড়ায় নয়, ফারদিনকে অন্য কোথাও হত্যা করা হয়েছে

এসময় কান্নাজড়িত কণ্ঠে ফারদিনের বাবা নুর উদ্দিন বলেন, আমার ছেলেকে হত্যার পর প্রায় এক মাস পেরিয়ে গেছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কী কারণে আমার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে তার রহস্য উদঘাটন করতে পারেনি তদন্তকারী সংস্থা। আমার মতো বুয়েটের শিক্ষকরাও ফারদিনের অভিভাবক। কিন্তু এ ব্যাপারে তাদের কোন ভূমিকা দেখছি না। এখন পর্যন্ত তারা তদন্তকারী সংস্থার কাছ থেকে কিছু জানতে চায়নি।

তিনি বলেন, আমার ছেলের মতো বুয়েটের আর কোনো শিক্ষার্থীকে যেন এভাবে হত্যাকাণ্ডের শিকার না হতে হয়। এসময় তিনি ছেলেকে হত্যার বিচার চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

মানববন্ধন শেষে ফারদিন হত্যার বিচার চেয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

এসএএ/কেএ

Link copied