মানুষ তার সম্প্রসারণমূলক কাজের জন্য পৃথিবীতে সংকট তৈরি করছে

Dhaka Post Desk

ঢাকা পোস্ট ডেস্ক

০৫ মার্চ ২০২৩, ০৭:০৯ পিএম


মানুষ তার সম্প্রসারণমূলক কাজের জন্য পৃথিবীতে সংকট তৈরি করছে

ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটিতে ‘৫ম নেহরীন খান স্মৃতি বক্তৃতা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (৫ মার্চ) বিশ্ববিদ্যালয়ের মঞ্জুর এলাহী অডিটোরিয়ামে এ বক্তৃতা অনুষ্ঠানে মূল বক্তা হিসেবে ছিলেন বিশিষ্ট ভারতীয় ইতিহাসবিদ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসের অধ্যাপক ডক্টর দীপেশ চক্রবর্তী। ‘মানব ইতিহাসে গ্রহের যুগ’ শিরোনামে তার বক্তৃতায় তিনি পৃথিবী এবং গ্রহের পার্থক্যের ওপর আলোচনা করেছেন।

ডক্টর চক্রবর্তী বলেন, পৃথিবী মানুষকেন্দ্রিক ও মানুষ দ্বারা বিকশিত। কিন্তু গ্রহ মানুষের তৈরি নয় এবং মানুষ গ্রহের কেন্দ্রবিন্দুও নয়। তার মতে, এ গ্রহের ভূতাত্ত্বিক এবং জৈবিক প্রক্রিয়াগুলোকে একত্রিত করে জটিল এবং বহুকোষী জীবন বজায় রাখার ইতিহাস অনেক দীর্ঘ কয়েক কোটি বছরের। সেই তুলনায় মানুষ পৃথিবীর সিস্টেমের একটা অংশ। তারা বিশ্বায়নের তীব্রতা, বিভিন্ন অর্থনৈতিক ও আহরণমূলক কাজের সম্প্রসারণের দরুন এ গ্রহের ওপর এবং তার নিজের (মানুষের) ওপর সংকট তৈরি করেছেন। মানুষের এসব কর্মকাণ্ডের প্রভাবে জীববৈচিত্র্যের এবং গ্রহের ভূ-ভৌতিক শক্তির আশংকাজনক ক্ষতি হচ্ছে বলে তিনি তার বক্তৃতায় উল্লেখ করেন।

উল্লেখ্য, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা প্রয়াত ডক্টর আকবর আলী খানের কন্যা ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির প্রাক্তন ছাত্রী নেহরীন খানের (প্রয়াত) স্মরণে এ বক্তৃতাটির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির প্রধান উপদেষ্টা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির উপাচার্য, অধ্যাপক ড. এম. এম. শহিদুল হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ফকরুল আলম, ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটির কোষাধ্যক্ষ, এয়ার কমডোর (অব.) ইশফাক ইলাহী চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়া অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থী, অনুষদ সদস্য, কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং প্রয়াত নেহরীন খানের কয়েকজন স্বজনরাও উপস্থিত ছিলেন।

এফকে

Link copied