শ্রমিককে বাঁচাতে সেপটিক ট্যাংকে নেমে কিশোরের মৃত্যু

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, চুয়াডাঙ্গা

১৮ মার্চ ২০২২, ১১:১৫ এএম


শ্রমিককে বাঁচাতে সেপটিক ট্যাংকে নেমে কিশোরের মৃত্যু

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় নির্মাণাধীন ভবনের সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কারের সময় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (১৮ মার্চ) সকাল পৌনে ১০টার দিকে আলমডাঙ্গা পৌর এলাকার আনন্দধাম গ্রামের দাসপাড়ার নিপেন দাসের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। 

মৃতরা হলেন- কুষ্টিয়ার কুমারখালী থানার কল্যাণপুর গ্রামের আনসার প্রামানিকের ছেলে শরিফুল ইসলাম (৩০) ও ভবন মালিকের নাতি পাবনার কবিরদিয়া গ্রামের রাজ কুমার দাসের ছেলে সাগর দাস (১৫)।

আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাদি জিয়াউদ্দিন আহমেদ ঢাকা পোস্টকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ফায়ার ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা দুজনকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। হাসপাতালে আনার আগেই তাদের মৃত্যু হয়েছে। 

আলমডাঙ্গা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ভারপ্রাপ্ত স্টেশন অফিসার মখলেছুর রহমান স্থানীয়দের বরাত দিয়ে বলেন, সেপটিক ট্যাংক পরিষ্কারের সময় শ্রমিক শরিফুল পড়ে যায়। এরপর কিশোর সাগর তাকে উদ্ধার করতে ট্যাংকে নামে। দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে আমরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি। মূলত বিষাক্ত গ্যাসের কারণে এ ঘটনা ঘটেছে।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম বলেন, নির্মাণাধীন ভবনের সেপটিক ট্যাংকে পড়ে দুইজনের মৃত্যুর খবর জেনেছি। বিস্তারিত জানতে পুলিশের একটি দলকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। 

আফজালুল হক/এসপি 

Link copied