কেসিসি মেয়রের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা সিএমএইচে প্রেরণ

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

০৮ মে ২০২২, ০৫:৪৮ পিএম


কেসিসি মেয়রের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা সিএমএইচে প্রেরণ

ডায়াবেটিস, ইউরিনে সমস্যা ও প্রচণ্ড জ্বরের কারণে অসুস্থ খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেককে ঢাকা সিএমএইচ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে।

রোববার (৮ মে) বিকেলে নগরীর শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতাল থেকে তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় পাঠানো হয়।

শহীদ শেখ আবু নাসের হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. এস এম মোর্শেদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কেসিসি মেয়রকে ঢাকা সিএমএইচ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) প্রকাশ চন্দ্র বিশ্বাস ঢাকা পোস্টকে বলেন, মেয়রের একাধিক রোগে আক্রান্ত। তাই পরিবার ও সংসদ সদস্যসহ দলীয় নেতা-কর্মীদের পরামর্শে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা সিএমএইচে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা বলেন, ঢাকার সিএমএইচে আগামী ১৫ তারিখ পর্যন্ত চিকিৎসাধীন থাকবেন। তারপর তাকে সিঙ্গাপুরে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য সেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল মেয়রের চিকিৎসার সব দায়িত্ব নিয়েছেন। এ ছাড়া খুলনা সিটি করপোরেশনের মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি তালুকদার আব্দুল খালেকের সুস্থতা কামনা করে পরিবার ও দলের পক্ষ থেকে সবার কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন।

কেসিসি মেয়রের সঙ্গে রয়েছেন তার সহধর্মিণী পরিবেশ, বন ও জলবায়ু উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুব নাহার, ভাইজি মেঘলা।

এদিকে সিটি মেয়রকে এগিয়ে দিতে হেলিপ্যাডে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও বিসিবি পরিচালক শেখ সোহেল, খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম ডি এ বাবুল রানা, প্যানেল মেয়র আমিনুল হক মুন্না, কাউন্সিলর আনিস বিশ্বাস, নগর যুবলীগের আহ্বায়ক সফিকুর রহমান পলাশসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

উল্লেখ্য, শনিবার (৭ মে) সকাল সাড়ে ১০টায় কেসিসি মেয়র প্রচণ্ড জ্বর, ইউরিন সমস্যা ও ডায়বেটিস সমস্যার কারণে খুলনার শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে ভর্তি হয়। তার সুচিকিৎসার জন্য হাসপাতালের পরিচালক ডা. শেখ আবু শাহীনকে প্রধান করে হাসপাতালে প্রতিটি বিভাগের একজন চিকিৎসক নিয়ে ৯ সদস্যবিশিষ্ট একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। দুপুরের পর মেয়রের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। 

মোহাম্মদ মিলন/এনএ

Link copied