কুড়িগ্রামে পাওনা ২০০ টাকা চাওয়ায় ছুড়ে মারল গরম তেল

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, কুড়িগ্রাম

১৩ মে ২০২২, ১১:৩৮ এএম


কুড়িগ্রামে পাওনা ২০০ টাকা চাওয়ায় ছুড়ে মারল গরম তেল

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে পাওনা টাকা ফেরত চাওয়াকে কেন্দ্র করে বাগবিতণ্ডা হয়। এতে চায়ের দোকানের গরম তেল দিয়ে সাদ্দাম হোসেন (৩০) নামের এক যুবককে ঝলসে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

বৃহস্পতিবার (১২ মে) উপজেলার রমনা মডেল ইউনিয়নের জোড়গাছ পুরাতন বাজারে এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই যুবক উপজেলার জোড়গাছ পুরাতন বাজারের মৃত আউয়ালের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিরা জানান, সাদ্দাম হোসেন জোড়গাছ পুরাতন বাজারে চায়ের দোকানে কাজ করেন। গত বুধবার (১১ মে) পাশের চায়ের দোকানের কর্মচারী সেলিমের (১৮) কাছ থেকে পাওনা ২০০ টাকা ফেরত চাইলে কথা-কাটাকাটি শুরু হয় ওই দোকানের মালিক ও সেলিমের সঙ্গে।

এর জের ধরে ঘটনার দিন দুপুরের দিকে সাদ্দামের বড় ভাই জীবনকে (৩৩) হঠাৎ আক্রমণ করেন পাশের চায়ের দোকানের মালিক রঞ্জু মিয়া ও তার ছেলে আকাশ। এরপর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে সাদ্দাম এসে হাজির হন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই আকাশ দোকানের বড় জগে করে গরম তেল ছুড়ে মারেন। এতে সাদ্দামের শরীর ঝলসে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চিলমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান।

সাদ্দামের বড় ভাই জীবন বলেন, বুধবার রাতে বাজারে তাদের কথা-কাটাকাটি হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে আমি চা খেতে বাজারে আসি কিন্তু হঠাৎ সেলিম, রঞ্জু, আকাশ আমাকে মারধর করে। তখনই আমি আমার ভাইকে ফোন করে জানাই। ছোট ভাই আসার সঙ্গে সঙ্গে তার গায়ে গরম তেল ছুড়ে মারে।

হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রণায় ছটফট করছেন সাদ্দাম। তবু তিনি বলেন, আমি ২০০ টাকা পাই সেলিমের কাছে। সেই টাকাই তো চেয়েছি। কিন্তু তারা সবাই মিলে আমার গায়ে গরম তেল ঢেলে দিয়েছে।

চিলমারী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্ত দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মো. জুয়েল রানা/এনএ

Link copied