টাঙ্গাইলে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কেন্দ্র ও পানির প্ল্যান্ট চালু

Dhaka Post Desk

ঢাকা পোস্ট ডেস্ক

২৫ মে ২০২২, ০৯:৫৬ পিএম


টাঙ্গাইলে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কেন্দ্র ও পানির প্ল্যান্ট চালু

বিশ্ব জীববৈচিত্র্য দিবস উপলক্ষে সম্প্রতি টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার মহেড়া ইউনিয়নে অবস্থিত পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে ‘বনায়ন’ প্রকল্পের উদ্যোগে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কেন্দ্র এবং ‘প্রবাহ’ প্রকল্পের সহযোগিতায় নিরাপদ খাবার পানির প্ল্যান্ট উদ্বোধন করা হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইলের পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের কমান্ড্যান্ট (ডিআইজি) মো. ময়নুল ইসলাম। 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বনায়ন ও প্রবাহ প্রকল্পের প্রতিনিধি শেখ শাবাব আহমেদ। 

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে অতিরিক্ত ডিআইজি মো. মাহবুবুর রহমান, পুলিশ সুপার (ট্রেনিং) আব্দুর রহিম শাহ চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অর্থ ও প্রশাসন) শেখ রাজিবুল হাসান এবং বনায়ন ও প্রবাহ প্রকল্পের প্রতিনিধি আহমেদ রায়হান আহসানউল্লাহ, মিজানুর কবির, মোসলেমা আক্তার মায়া, আখতার আনোয়ার খানসহ পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মো. ময়নুল ইসলাম বলেন, কালের স্বাক্ষী বহনকারী লৌহজং নদীর তীরে গড়ে ওঠা মির্জাপুর উপজেলার মহেড়া জমিদার বাড়িতে অবস্থিত পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার একটি ঐতিহ্যবাহী দর্শনীয় স্থান। এখানে প্রশিক্ষণার্থীদের নিরাপদ খাবার পানি সরবরাহের জন্য প্ল্যান্ট স্থাপন করায় প্রবাহকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় জীব বৈচিত্র সংরক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন করায় বনায়নের প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি। 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে শেখ শাবাব আহমেদ বলেন, যেকোনো উন্নয়ন কার্যক্রম সম্পাদনের জন্য আমাদের নির্ভর করতে হয় প্রকৃতি, পরিবেশ ও পানির ওপর। পরিবেশ ও প্রকৃতির বিঘ্ন না ঘটিয়ে আমাদের টেকসই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। আগামীতে নিরাপদ এবং সবুজ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে বাংলাদেশ পুলিশসহ সরকারের অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যৌথভাবে বনায়ন ও প্রবাহ প্রকল্প তার কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

dhakapost

পুলিশ ট্রেনিং সেন্টার কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধানে এবং বনায়ন প্রকল্পের উদ্যোগে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কেন্দ্র স্থাপন ও প্রবাহ প্রকল্পের সহযোগিতায় নিরাপদ খাবার পানির প্ল্যান্ট স্থাপন করার ফলে পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারে আগত প্রশিক্ষণার্থী এবং দর্শনার্থীরা জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ কেন্দ্র থেকে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বিভিন্ন প্রজাতির গাছের ভূমিকা এবং উপকারিতা সম্পর্কে জানতে পারবেন। একই সঙ্গে বিনামূল্যে বিশুদ্ধ খাবার পানি পান করতে পারবেন। 

উল্লেখ্য,পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা এবং জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণের লক্ষ্যে ১৯৮০ সালে বনায়ন প্রকল্প যাত্রা শুরু করে। বনায়ন প্রকল্পের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত ১৮টি জেলায় সাড়ে ১১ কোটি গাছের চারা বিতরণ এবং রোপণ করা হয়েছে। এছাড়াও প্রবাহ ২০০৯ সাল থেকে যাত্রা শুরু করে এখন পর্যন্ত ১১২টি পানি বিশুদ্ধকরণ প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে দুই লাখ ৭৫ হাজারের অধিক মানুষের দৈনিক খাবার পানি সরবরাহ করে আসছে।

আরএআর

Link copied