সমন্বয় সভায় ইউপি চেয়ারম্যানকে থাপ্পড়, প্যানেল মেয়র গ্রেপ্তার

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, মানিকগঞ্জ

২৫ মে ২০২২, ১০:৩৩ পিএম


সমন্বয় সভায় ইউপি চেয়ারম্যানকে থাপ্পড়, প্যানেল মেয়র গ্রেপ্তার

আব্দুর রাজ্জাক রাজা

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা ভাড়ারিয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আব্দুল জলিলকে চড়-থাপ্পড় দেওয়ার অভিযোগে মানিকগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আব্দুর রাজ্জাক রাজাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। 

বুধবার (২৫ মে) রাতে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল বাদী হয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানায় মামলা করলে আব্দুর রাজ্জাক রাজাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।  এদিকে আব্দুর রাজ্জাক রাজার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে রাতে শহরের বিক্ষোভ মিছিল করেছেন তার অনুসারীরা। 

এর আগে সকাল ১০টার দিকে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে মাসিক সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. ইসরাফিল হোসেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ ইকবাল হোসেনসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান এবং সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা উপস্থিত ছিলেন।প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মাসিক সমন্বয় সভা শেষে দুপুরের খাওয়ার বিরতি দেওয়া হয়। এ সময় মানিকগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আব্দুর রাজ্জাক রাজার সঙ্গে সদর উপজেলার ভাড়ারিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিলের কোনো একটি বিষয় নিয়ে তর্ক শুরু হয়। একপর্যায়ে চেয়ারম্যান আব্দুল জলিলের গালে চড় মারেন আব্দুর রাজ্জাক। এ নিয়ে হট্টোগোল শুরু হয় সভার মধ্যে। চেয়ারম্যান আব্দুল জলিলও পাল্টা চড় মারেন আব্দুর রাজ্জাকের গালে।

এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান ইসরাফিল হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন, আন্যান্য দপ্তরের প্রধান এবং ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে আব্দুর রাজ্জাক রাজাকে থানায় নিয়ে যান।

সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ইসরাফিল হোসেন বলেন, জনপ্রতিনিধির এমন আচরণ দুঃখজনক। আইনগতভাবে বিষয়টি মীমাংসা হওয়া উচিত। 

এ বিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন বলেন, সমন্বয় সভা শেষে সবার খাবার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এ সময় আমি হাত ধোয়ার জন্য যাই। কিছুক্ষণ পরে এসে এ ঘটনা জানতে পারি। পরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হলে সদর থানায় খরব দেই। আইন-শৃঙ্খলা সভায় এ ধরণের ঘটনা ঘটলে সাধারণ জনগণের নিরাপত্তা আমরা কীভাবে দেব। এ ঘটনা মৌখিকভাবে জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে। আগামীকাল লিখিতভাবে জানানো হবে। 

ভাড়ারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জানান, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পৌরসভার প্যানেল মেয়র আব্দুর রাজ্জাক রাজা মাসিক সমন্বয় সভায় সবার সামনে আমাকে থাপ্পড় মেরেছেন। ভাড়ারিয়া এলাকায় ডিস ব্যবসায়ীরে কাছ থেকে চাঁদা নেওয়া বন্ধ করে দেওয়ার কারণে এই আক্রমণ করেছেন। এ ঘটনায় আজ রাতে বাদী হয়ে সদর থানায় মামলা করেছি। 

পুলিশ হেফাজতে থাকা পৌরসভার প্যানেল মেয়র আব্দুর রাজ্জাক রাজা বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড নিয়ে নেতিবাচক কথা বলায় চেয়ারম্যানকে সতর্ক করা হয়। এ সময় তিনি উত্তেজিত হয়ে অপমানজনক কথা বলেন। এর প্রতিবাদ করায় উল্টো চেয়ারম্যান আমাকে থাপ্পড় মারেন। 

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ভাস্কর সাহা (সদর সার্কেল) বলেন, এ ঘটনায় ভাড়ারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা করেছেন। অভিযুক্ত পৌরসভার প্যানেল মেয়র রাজা দুপুর থেকে পুলিশ হেফাজতে ছিলেন। মামলা রেকর্ড হওয়ার পরে তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। আগামীকাল তাকে আদালতে পাঠানো হবে। 

সোহেল হোসেন/আরএআর

Link copied