ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ৭ কিমি এলাকায় যানজট

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, রাজবাড়ী

২৪ জুন ২০২২, ১১:০৫ পিএম


ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ৭ কিমি এলাকায় যানজট

শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি নৌ রুটের ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ও পদ্মায় তীব্র স্রোতে ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট এলাকায় তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে। ঘাট এলাকা থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের প্রায় সাত কিলোমিটার জুড়ে রয়েছে যানবাহনের সারি। ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে ছোটগাড়ি, যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক মিলে নদী পার হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে ছয় শতাধিক যানবাহন।

শুক্রবার (২৪ জুন) রাতে দৌলতদিয়া ফেরিঘাট ও ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে এমন চিত্র দেখা যায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, পদ্মায় প্রবল স্রোত। স্রোতে ফেরি চলাচল বিঘ্ন ঘটছে। ৩০-৪০ মিনিটের নৌপথ পাড়ি দিতে এক ঘণ্টারও বেশি সময় লাগছে। ফেরিগুলোকে কয়েক কিলোমিটার ঘুরে তারপর পারে ভিড়তে হচ্ছে। ফেরি পারাপারে ধীরগতি থাকায় ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কমে যাচ্ছে। এতে দৌলতদিয়া প্রান্তে দেখা দিয়েছে তীব্র যানজট। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে বন্ধ থাকা শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি নৌরুটের যানবাহন। এতে দৌলতদিয়া প্রান্তে বাড়তি চাপ পড়েছে।

ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের প্রায় সাত কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানবাহনের সারি দেখা গেছে। অপেক্ষামাণ এসব যানবাহনগুলোর মধ্যে বাস, ছোটগাড়ি ও পণ্যবাহী ট্রাক রয়েছে। তবে মহাসড়কে সিরিয়ালে আটকে থাকা যানবাহনগুলোর মধ্যে পণ্যবাহী ট্রাকের সংখ্যাই বেশি দেখা গেছে। এসব পণ্যবাহী ট্রাক ১৬-১৮ ঘণ্টা অপেক্ষা করেও এখন পর্যন্ত ফেরির দেখা পায়নি। দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করে ফেরির নাগাল না পেয়ে এদের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে।

অপরদিকে ঘাট এলাকা স্বাভাবিক রাখতে রাজবাড়ী জেলা পুলিশ গোয়ালন্দ মোড় এলাকায় অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে আটকে দিচ্ছে। সেখানেও ট্রাকের সারি প্রায় দুই কিলোমিটার এলাকা পর্যন্ত ছেড়ে গেছে। ঘাট এলাকা স্বাভাবিক হলে এসব অপচনশীল পণ্যবাহী ট্রাকগুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পরে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে।

ট্রাকচালক সৈয়দ আলী বলেন, ১৬ ঘণ্টা হলো ঘাট এলাকায় এসে আটকে রয়েছি। প্রথমে গোয়ালন্দ মোড়ে এসে পুলিশ আটকে দিলে সেখানে ১০ ঘণ্টা থাকি। পরে আজ দুপুরে গোয়ালন্দ মোড় থেকে ছেড়ে দিলে আবার ঘাট এলাকায় এসে সিরিয়ালে আটকে যাই। এখানেও প্রায় ছয় ঘণ্টা কেটে গেল, কিন্তু এখনো ফেরির দেখা পেলাম না। কখন যে পাব, সেটাও বলতে পারছি না।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক প্রফুল্ল চৌহান ঢাকা পোস্টকে বলেন, পদ্মায় তীব্র স্রোতে ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় ফেরির ট্রিপ সংখ্যা কমে গেছে। এতে স্বাভাবিক সময়ের থেকে এখন কম যানবাহন পার হচ্ছে। ফলে এ রুটে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। সিরিয়ালের সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। এর সঙ্গে আবার নতুন করে যোগ হয়েছে বন্ধ থাকা শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি নৌরুটের যানবাহন। তবে আমরা ঘাট কর্তৃপক্ষ যাত্রীবাহী বাস,পচনশীল পণ্যবাহী ট্রাক, জরুরি সেবার যানবাহনগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পার করছি। বর্তমানে এই রুটে ২০ টি ফেরি চলাচল করছে। 

মীর সামসুজ্জামান/আরএআর

Link copied