প্রেমিকার বাবা গ্রেপ্তার

প্রেমের জেরে ছাত্রলীগ নেতাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি

নোয়াখালী 

১১ জুলাই ২০২২, ১১:৪৭ পিএম


প্রেমের জেরে ছাত্রলীগ নেতাকে গাছে বেঁধে নির্যাতন

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় প্রেমের জেরে রিয়াদ উদ্দিন শাকিল (২২) নামের এক ছাত্রলীগ নেতাকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত প্রেমিকার বাবাকে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

ভুক্তভোগী রিয়াদ উদ্দিন শাকিল হাতিয়া দ্বীপ সরকারি কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। তিনি ওই কলেজের ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও হাতিয়া পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের মো. সেলিমের ছেলে।

১ মিনিট ২৪ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, হাতিয়া দ্বীপ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি শাকিলকে গাছে বেঁধে নির্যাতন করেছেন কয়েকজন। এ সময় শাকিল তাদেরকে ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ করছেন।

ভাইরাল হওয়া ভিডিও তার নিশ্চিত করে রিয়াদ উদ্দিন শাকিল ঢাকা পোস্টকে বলেন, সহপাঠীর সঙ্গে আমার প্রেমের সম্পর্ক। প্রেমিকার ভাই শরীফ তার বোনের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয় জানতে পেরে আমাকে একাধিকবার হত্যার হুমকি দেয়। তারই জের ধরে শনিবার রাতে স্থানীয় ওছখালি বাজারে থেকে বাড়ি ফেরার পথে শরিফের ৫-৬ জন লোক তাকে চোখ বেঁধে তুলে নিয়ে যায়। অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে বেদম মারধর করে। পরে একটি বাগানে গাছের সঙ্গে বেঁধে প্রাণে হত্যার চেষ্টা করে। 

তিনি বলেন, এ সময় নির্যাতনকারীরা বলেন যে এ ঘটনা কারো কাছে বললে তারা আমার প্রেমিকাকে হত্যা করে আমাকে ফাঁসিয়ে দেবে। এক পর্যায়ে নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা এসে ভিড় করে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এলে নির্যাতনকারীরা পালিয়ে যায়। পুলিশ আমাকে উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় রোববার (১০ জুলাই) রাতে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত নাম-পরিচয়ে আরও ৮-১০ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন নির্যাতিত ওই ছাত্রলীগ নেতা। 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, শাকিলের সঙ্গে একই ক্লাসের এক ছাত্রীর (২২) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি জানতে পেরে রোববার রাতে বাজার থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে লোকজন নিয়ে শাকিলকে আটক করেন ওই ছাত্রীর ভাই শরীফ ও বাবা নুরুল আমিন। পরে চোখ বেঁধে বাড়িতে নিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেন। এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়।

এর আগে, শনিবার (৯ জুলাই) দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার হাতিয়া পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে।

এদিকে সোমবার (১১ জুলাই) দুপুরে হাতিয়া পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের চরকৈলাশ গ্রামের বাসিন্দা প্রেমিকার বাবা নুরুল আমিনকে (৫৫) গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠানো হয়।

হাতিয়া পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. রহমত উল্যা বলেন, প্রেমঘটিত বিষয়ে শাকিলকে চোর আখ্যা দিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করা হয়। এখানে চুরির কোনো ঘটনা ঘটেনি। আমি সকালে এলাকায় গিয়ে প্রকৃত ঘটনা পুলিশকে জানিয়েছি।

নোয়াখালী জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম ঢাকা পোস্টকে বলেন, ভুক্তভোগী রিয়াদ উদ্দিন শাকিল বাদী হয়ে ছয়জনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। মামলায় নুরুল আমিন নামের এক আসামিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত আছে।

হাসিব আল আমিন/ওএফ

Link copied