আমরা বরগুনার ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, বরগুনা

১৬ আগস্ট ২০২২, ০৬:৫৯ পিএম


আমরা বরগুনার ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি

বরগুনার ঘটনায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোসেন বিদ্যুৎ বলেন, আমরা বরগুনার ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখেছি। তবে এভাবে দেখে কারও বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যায় না। তাই কেন্দ্র তদন্ত করেছে। আমরা তদন্ত করে প্রতিবেদন সভাপতি-সম্পাদকের কাছে জমা দেব। তারা ব্যবস্থা নেবে। 

তিনি বলেন, ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ওপর হামলার ঘটনায় সংঘর্ষ এড়াতে পুলিশের লাঠিচার্জের ঘটনা নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তারা বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেন, বরগুনা জেলার শিল্পকলা একাডেমিতে অনাকাঙ্ক্ষিত সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনার তদন্তের স্বার্থে ছাত্রলীগ নেতা বেল্লাল হোসেন বিদ্যুৎ ও আব্দুর রশিদ রাফি তিন কার্য দিবসের মধ্যে সুপারিশসহ তদন্ত প্রতিবেদন কেন্দ্রীয় দপ্তর সেলে জমা দেবেন।

এ বিষয়ে 

প্রসঙ্গত, ১৫ আগস্ট দুপুর ১২টার দিকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি কমপ্লেক্সে ফুল দিতে যান জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল কবির রেজা ও সাধারণ সম্পাদক তৌশিকুর রহমান ইমরান। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে ফেরার সময় শিল্পকলা একাডেমির সামনে পৌঁছালে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত গ্রুপের সদস্যরা তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে দুই গ্রুপের নেতা-কর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাঠিচার্জ করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে আহত হন অন্তত ৬০ জন। 

এর আগে দীর্ঘ আট বছর পর গত ১৭ জুলাই বরগুনা শহরের সিরাজ উদ্দীন টাউন হল মিলানায়তনে বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ২৪ জুলাই রাতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক জেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির অনুমোদন দেন। এতে জেলা কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৩৩ সদস্যের নাম প্রকাশ করা হয়। এরপর থেকেই সদ্য ঘোষিত এ কমিটি প্রত্যাখ্যান করে বরগুনা শহরে পদবঞ্চিতরা প্রতিবাদ জানাতে থাকে।

খান নাঈম/এমএএস 

Link copied