শিশুরাই উন্নত বাংলাদেশ গড়ার মূল কারিগর : প্রতিমন্ত্রী

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, গাইবান্ধা

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:০৭ এএম


শিশুরাই উন্নত বাংলাদেশ গড়ার মূল কারিগর : প্রতিমন্ত্রী

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেছেন, আজকের শিশুরাই উন্নত বাংলাদেশ গড়ার মূল কারিগর। দেশকে উন্নত করতে হলে জাতিকে শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় গাইবান্ধার এসকেএস ইনের বানকুয়েট হলে সেভ দ্য চিলড্রেনের ‘চ্যাম্পিয়নিং প্লে’ প্রকল্পের পরিচিতি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন,  সেভ দ্য চিলড্রেন যে প্রকল্প নিয়েছে, তা শিশুদের প্রারম্ভিক বিকাশে সাহায্য করবে। একইসঙ্গে শিক্ষার গুণগত মান অর্জনে সহযোগিতা করবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার চারটি ইউনিয়নের শূন থেকে ছয় বছর বয়সী ১২ হাজার ২২৬ জন শিশুর সার্বিক বিকাশ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে এসকেএস ফাউন্ডেশন ও সেভ দ্য চিলড্রেন প্রকল্পটি হাতে নিয়েছে। এতে এ শিশুদের ১১ হাজার ৭৫০ জন অভিভাবক, ৪৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের ১ হাজার ৩৭৫ জন শিক্ষার্থী ও ২২৫ জন শিক্ষককে অন্তর্ভুক্ত করার মাধ্যমে শিশুর সার্বিক বিকাশ নিশ্চিত করা হবে। প্রকল্পটিতে অর্থায়ন করেছে সুইডেনের লেগো ফাউন্ডেশন। 

‘চ্যাম্পিয়নিং প্লে’ প্রকল্পের আওতায় শিশুদের মাঝে ম্যাজিক ব্যাগ বিতরণ, শিশুদের মা, বাবা ও যত্নকারীদের সঙ্গে মেন্টাল হেলথ অ্যান্ড সাইকো-সোশ্যাল সাপোর্ট বা মানসিক স্বাস্থ্য ও মনো-সামাজিক সহায়তা বিষয়ে আলোচনা, গল্প বলা ও খেলনা প্রস্তুত বিষয়ক ভিডিও প্রদর্শন, শিশুদের মা ও যত্নকারীদের নিয়ে খেলার প্রতিযোগিতা ও শিশু মেলার আয়োজন, সরকারি ও অন্যান্য অংশীজনদের সঙ্গে  মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হবে। ইতোমধ্যে অভিভাবকদের জন্য ৩০টি ভিডিও উপকরণ তৈরি করা হয়েছে।

এসকেএস ফাউন্ডেশনের নির্বাহী প্রধান রাসেল আহম্মেদ লিটনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক মো. অলিউর রহমান, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তরের রংপুর বিভাগের উপ-পরিচালক মোজাহেদুল ইসলাম ও বাংলাদেশে সেভ দ্য চিলড্রেনের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক শামীম জাহান।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের শিক্ষক, অভিভাবক, গণমাধ্যমকর্মী, শিশুদের বিকাশ ও সুরক্ষার সঙ্গে জড়িত সব অংশীজন, সেভ দ্য চিলড্রেন ও এসকেএস ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

রিপন আকন্দ/আরএইচ

Link copied