বিএনপি নেতাকে না পেয়ে ছেলেকে তুলে নিয়ে গেল পুলিশ

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ

০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:১৭ পিএম


বিএনপি নেতাকে না পেয়ে ছেলেকে তুলে নিয়ে গেল পুলিশ

রোবায়েত ইসফাক প্রিতম

জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম রবির বাড়িতে পুলিশ তল্লাশী চালিয়েছে। এসময় তাকে না পেয়ে তার বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছেলে রোবায়েত ইসফাক প্রিতমকে তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ। পরিবারের দাবি প্রিতম রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়, তবুও তাকে জোর করে তুলে নেওয়া হয়েছে।

বুধবার (৭ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন হিরাঝিল এলাকা ঘিরে ফেলে সিদ্ধরগঞ্জ থানা ও গোয়েন্দা পুলিশের শতাধিক সদস্য। পরে ভোর পর্যন্ত তল্লাশি অভিযান চলে।

মনিরুলের স্ত্রী নিলুফার ইসলাম বলেন, গভীর রাতে আমার বাড়িতে পুলিশ সদস্যরা তল্লাশির নামে বাড়ি-ঘর তছনছ করেছে। আমার স্বামী এর আগে জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক ছিলেন। বর্তমানে তিনি যুগ্ম আহ্বায়ক পদে আছেন। সম্প্রতি নাশকতার অভিযোগে যে মামলা হয়েছে, সেখানে তিনি আসামি নয়। রাজৈনতিক মামলায় তিনি জামিনে আছেন। এরপরও পুলিশি হয়রানি করা হচ্ছে। বাড়িতে অভিযান চালিয়ে রবিকে না পেয়ে জোর করে আমার ভার্সিটি পড়ুয়া ছেলেকে তুলে নিয়ে গেছে।

তিনি আরও বলেন, আমার ছেলে কখনো কোন মিটিং-মিছিলে যায়নি। রাজনীতি করে ওর বাবা। এই কথাগুলো পুলিশ সদস্যদের বারবার বলার পরেও তারা আমার ছেলেকে টেনেহিঁচড়ে নিয়ে গেছে। এছাড়াও তারা খুব বাজে ব্যবহার করেছে, যা কোনোভাবেই কম্য নয়।

এদিকে মনিরুল ইসলাম রবি জানান, বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে আমাকে না পেয়ে আমার ছোট ছেলেকে ধরে নিয়ে গেছে। সরকার বিএনপির আন্দোলন দমন করতে পুলিশকে ব্যবহার করছে। সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জে নাশকতার অভিযোগে বিস্ফোরক আইনে ১২টি মামলা হয়েছে আমি এর একটিরও আসামি নই। রাজনৈতিক মামলায় আমি জামিনে আছি। তারপরও কেন এমন হয়রানি করছে পুলিশ। ছেলেটার কোনো খোঁজ নিতে পারছি না। থানায় গেলে নিশ্চয়ই গ্রেপ্তার করা হবে। এভাবে আন্দোলন দমন করা যাবে না। ১০ তারিখের সমাবেশ পণ্ড করতে সরকারের সব দমননীতিকে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে ঢাকায় জনসমুদ্র সৃষ্টি হবে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) হাফিজুর রহমান বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মনিরুল ইসলাম রবির ছেলে প্রিতমকে থানায় আনা হয়েছে। তাকে আটক বা গ্রেপ্তার করা হয়নি।

আবির শিকদার/আরকে

Link copied