ইনজেকশন দেওয়ার পরই মারা গেলেন রোগী

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, মুন্সিগঞ্জ

০৭ এপ্রিল ২০২১, ২২:৪৩

ইনজেকশন দেওয়ার পরই মারা গেলেন রোগী

রানী জেনারেল হাসপাতাল

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরে ইনজেকশন দেওয়ার পরপরই এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (৭ এপ্রিল) দুপুর ২টার দিকে নিশি আক্তার (২৫) নামের ওই নারীকে উপজেলার ঝুমুর সিনেমা হল সংলগ্ন রানী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান স্বজনরা।

হাসপাতালের চিকিৎসক সৈয়দ আবু সাঈদ ইনজেকশন পুশ করার কিছুক্ষণ পরই নিশির মৃত্যু হয়। নিশি উপজেলার বালাশুর বানিয়া বাড়ি এলাকার দীন ইসলামের স্ত্রী। স্বামীর সঙ্গে ঢাকায় থাকতেন।

স্বজনরা জানিয়েছেন, দুপুরে অসুস্থ অবস্থায় নিশিকে রানী জেনারেল হাসপাতালে নিলে ইনজেকশন দেন চিকিৎসক সৈয়দ আবু সাঈদ। কয়েক মিনিটের মধ্যে তার মৃত্যু হয়। এখানের চিকিৎসক তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠালে চিকিৎসক প্রহলাদ কৃষ্ণ বর্মণ বলেন একটু আগেই মৃত্যু হয়েছে। পরে নিশির মরদেহ নিয়ে রানী হাসপাতালে আসেন স্বজনরা। তাদের দেখে রানী হাসপাতালের চিকিৎসক নার্সসহ মালিকপক্ষের লোকজন পালিয়ে যান। 

কাউকে না পেয়ে মরদেহ নিয়ে হাসপাতালে অবস্থান নেন স্বজনরা। স্বজনদের আহাজারিতে সবাই এগিয়ে আসেন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে হাসপাতালের মালিক হারুন-অর-রশিদকে ডেকে আনেন। 

শ্রীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হেদায়াতুল ইসলাম ভূঞা বলেন, রোগীর স্বজনরা মরদেহ নিয়ে গেছেন। তারা থানায় লিখিত অভিযোগ দেননি। অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সম্প্রতি ভুল চিকিৎসা ও অনিয়মের ঘটনায় রানী হাসপাতালকে দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও এক কর্মচারীকে এক মাসের কারাদণ্ড দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রহিমা আক্তার। ২০১৬ সালে হাসপাতালটিতে এক প্রসূতির মৃত্যুর ঘটনায় রোগীর স্বজনরা চিকিৎসকের ওপর চড়াও হন। পরে র‌্যাব ও পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ঘটনায় চিকিৎসক-কর্মচারীসহ আটজনকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। একই বছর র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক প্রতিষ্ঠানটিকে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। স্বাস্থ্যসেবার নামে প্রতিষ্ঠানটির একের পর এক অনিয়মের ঘটনায় প্রতিনিয়ত প্রতারিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ।

ব.ম শামীম/এএম

Link copied