ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ২৭ জন আটক

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ

১০ মে ২০২১, ০৯:৩৭ পিএম


ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ২৭ জন আটক

অবৈধভাবে সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় ২৭ জনকে আটক করেছে বিজিবি। সোমবার ভোররাতে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার মাটিলা ও সামন্তা সীমান্ত থেকে তাদের আটক করা হয়। আটকরা নিজেদের বাংলাদেশি বলে দাবি করেছেন। 

সীমান্ত পারাপারে সহায়তা করার অভিযোগে মো. সাদ্দাম হোসেন (২৬) নামে এক দালালকেও আটক করা হয়েছে। তিনি মহেশপুর উপজেলার মাইলবাড়িয়ার গ্রামের মো. নুরউজ্জামানরে ছেলে।

বিজিবি জানিয়েছে, সোমবার ভোরে মহেশপুর ব্যাটালিয়ন (৫৮ বিজিবি) এর অধিনস্ত মাটিলা বিওপির ৫২/১২ নম্বর পিলারের কাছ থেকে ১৯ জনকে অবৈধভাবে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করার অপরাধে আটক করা হয়েছে। 

আটকদের মধ্যে ১৭ জনই নাটোর জেলার বাসিন্দা। তারা হলেন, মো. নুর হোসেন (৫০), মো. রহিদুল শেখ (৩৮), মো. হোসেন শেখ (৪৫), মো. বুলবুল শেখ (৩২), মো. বিনত খান (৩৬), মো. শাকিরুল হোসেন (১৮), মো. নিয়াজুল ইসলাম (৩৮), মো. ইয়াহিয়া খান (৩৪), মো. ফরিদ সরদার (৪২), মো. নয়ন শেখ (৪০), মো. খায়রুল সরদার (৩০), মো. মোক্তার (৫১), মো. আলমগীর হোসেন (৪২), মো. বিল্পব শেখ (২৯), মো. জাকারিয়া মাসুদ রানা (৩৯), মো. অলিয়ন ইসলাম (৩৪) ও মো. রকেট শেখ (৩০)। এছাড়া লক্ষীপুর জেলার বাসিন্দা মো. সাগর (১৮) ও বরিশাল জেলার বাসিন্দা মো. রফিকুল ইসলাম (৩২)। 

Jhenaidah

অপরদিকে, একই দিন সকাল ৬টায় মহেশপুর ব্যাটালিয়নের (৫৮ বিজিবি) অধিনস্ত সামন্তা বিওপির ৫৪/২- এর ‍পিলারের কাছে ৮ জনকে আটক করা হয়। আটকদের মধ্যে ৩ জন খুলনা জেলার বাসিন্দা। তারা হলেন, আজিজ মোল্লা (১৯), মোছা. আদরী (৩৮) ও  মোছা. মনি (২৬)। এছাড়া বাগেরহাটের বাসিন্দা মো. মহসিন (৩৯), ফরিদপুরের বাসিন্দা মো. এনামুল মোল্লা (২৩), নড়াইলের বাসিন্দা মো. মহিত শেখ (৪৫) যশোরের বাসিন্দা মোছা. তানিয়া খাতুন (৩০) ও নরসিংদির বাসিন্দা মোছা. চম্পা বেগম।

খালিশপুর বিজিবির ৫৮ ব্যাটালিয়নের পরিচালক লে. কর্নেল কামরুল আহসান জানান, অবৈধ অনুপ্রবেশের খবর পেয়ে বিজিবির টহলদল অভিযান চালায়। এসময় মাটিলা সীমান্ত থেকে ১৯ জন ও সামন্তা এলাকা থেকে ৮ জনকে আটক করা হয়। বিজিবির পক্ষ থেকে তাদের বিরুদ্ধে মহেশপুর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশের কারণে করোনার সংক্রমণের আশঙ্কা করছে সীমান্তের বাসিন্দারা।

আল মামুন/এমএএস

 

Link copied