পুলিশের ধাওয়ায় নদীতে ঝাঁপ, দুদিন পর মিলল যুবকের মরদেহ

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, গাজীপুর

২৯ জুলাই ২০২১, ০৫:০৮ পিএম


পুলিশের ধাওয়ায় নদীতে ঝাঁপ, দুদিন পর মিলল যুবকের মরদেহ

গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলায় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে শীতলক্ষ্যা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

ঘটনার দুদিন পর বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ভোরে নরসিংদীর রূপগঞ্জ উপজেলার কলিঙ্গা এলাকার শীতলক্ষ্যা নদী থেকে রাব্বি হাসান (২১) নামে ওই যুবকের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। রাব্বি হাসান তুমুলিয়া ইউনিয়নের টিউরি গ্রামের খোকন মিয়ার ছেলে।

রাব্বির ফুফাতো বোন ফারহানা খালেক মিলি বলেন, মঙ্গলবার রাতে (২৭ জুলাই) বঙ্গবন্ধু বাজার এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে নোঙর করা নৌযানে (জাহাজ) বসে রাব্বিসহ স্থানীয় কয়েকজন যুবক আড্ডা দিচ্ছিল। এ সময় কালীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শহীদুল ইসলামসহ পুলিশের একটি দল নৌযানে অভিযান চালায়। তখন পুলিশ দেখে তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে রাব্বি পানিতে ঝাঁপ দেয়।

কালীগঞ্জ থানার ওসি একেএম মিজানুল হক বলেন, মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে শীতলক্ষ্যা নদীতে নোঙর করা একটি জাহাজে কিছু যুবকের মধ্যে মারামারি হয়। খবর পেয়ে টহল পুলিশ সেখানে গেলে তাদের কয়েকজন নদীতে ঝাঁপ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। পরে অন্যরা নদী থেকে উঠে গেলেও রাব্বি নামে এক যুবকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয় ভাদার্তী গ্রামের শান্ত ও সাজেদ মিয়া নামে দুই যুবককে গ্রেফতার করে বুধবার কোর্টে চালান করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, টঙ্গী ও কালীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের দুটি ডুবুরি দলের ছয়জন সদস্য অভিযান চালিয়েও তার কোনো সন্ধান পায়নি। পরে এলাকাবাসীর মাধ্যমে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ভোর সোয়া ৪টার দিকে নরসিংদীর রূপগঞ্জ উপজেলার কলিঙ্গা এলাকার শীতলক্ষ্যা নদী থেকে রাব্বি হাসানের ভাসমান মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

শিহাব খান/এসকেডি

Link copied