৩৩ ঘণ্টাতেও উদ্ধার হয়নি চরে আটকা লঞ্চ

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, ঝালকাঠি

১৪ আগস্ট ২০২১, ১২:৫০ পিএম


৩৩ ঘণ্টাতেও উদ্ধার হয়নি চরে আটকা লঞ্চ

অডিও শুনুন

ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার বড়ইয়া ইউনিয়নের চরপালট গ্রামের বিষখালী নদীর চরে আটকা পড়েছে ঢাকা-বরগুনা রুটের অভিযান-১০ নামে একটি যাত্রীবাহী লঞ্চ। ঢাকা থেকে ৪৩৪ যাত্রী নিয়ে বরগুনা যাওয়ার পথে বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ৩টায় শাহরুখ-২ নামে আরেকটি লঞ্চকে ওভারটেক করতে গিয়ে ডুবোচরে উঠে যায় লঞ্চটি। 

এ ঘটনার ৩৩ ঘণ্টা পার হলেও লঞ্চটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। অভিযান-১০ লঞ্চের মাস্টার মো. মাসুদ আলম বলেন, শুক্রবার মধ্য রাতের জোয়ারে নদীর পানি বৃদ্ধির পরে অনেক চেষ্টা করেও লঞ্চটি সরানো সম্ভব হয়নি। বরং ইঞ্জিন ভাইব্রেটের কারণে লঞ্চের তলা মাটির নিচে দেবে যাচ্ছে। 

উল্লেখ্য, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা অভিযান-১০ ও শাহরুখ-২ লঞ্চ পাশাপাশি পাল্লা দিয়ে বরগুনা যাচ্ছিল। চলতে চলতে ঝালকাঠির রাজাপুরে এসে শাহরুখ-২ লঞ্চকে পাশ কাটিয়ে পেছনে ফেলে যাওয়ার সময় অভিযান-১০ লঞ্চটি বিষখালী নদীর চরে উঠে যায়।

বড়ইয়া ইউপি চেয়ারম্যান শাহাবুদ্দিন সুরুজ ঢাকা পোস্টকে বলেন, সকালে আমরা লঞ্চটি চরে আটকে থাকতে দেখে ট্রলারে করে যাত্রীদের পাড়ে আনতে সহযোগিতা করেছি। লঞ্চ কর্তৃপক্ষ সবাইকে ভাড়ার কিছু অংশ ফেরত দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, জোয়ারের পানিতেও লঞ্চ নদীতে নামানো সম্ভব না। আগামী ৫/৭ দিন পর বড় জোয়ার এলে সম্ভব হতে পারে। এক্ষেত্রে উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা বা রুস্তমকে দরকার।

ঝালকাঠি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. সালাহউদ্দিন ঢাকা পোস্টকে বলেন, যাত্রীরা সবাই উদ্ধার হওয়ায় আমাদের আর কিছু করার নেই।

ইসমাঈল হোসাঈন/এসপি

Link copied