এক দিনে রামেক হাসপাতালে ৬ জনের প্রাণহানি

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:২৯ এএম


এক দিনে রামেক হাসপাতালে ৬ জনের প্রাণহানি

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে আরও ছয়জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে করোনায় তিনজন এবং উপসর্গ নিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টা থেকে মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার মধ্যে তারা মারা যান। 

রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে হাসপাতালে রাজশাহী, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও পাবনা জেলার একজন করে মারা গেছেন। এ ছাড়া করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন রাজশাহীর দুজন এবং কুষ্টিয়ার একজন।

গত ২৪ ঘণ্টায় চারজন মারা গেছেন হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ)। এ ছাড়া ১৭ ও ২৯/৩০ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে মারা গেছেন। 

এদিকে ২৪০ শয্যার করোনা ইউনিটে মঙ্গলবার সকাল ৯টা পর্যন্ত রোগী ভর্তি ছিলেন ১৩৩ জন। এক দিন আগেও এই সংখ্যা ছিল ১২৯। বর্তমানে রাজশাহীর ৬০ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ১৬ জন, নাটোরের ১৪ জন, নওগাঁর ১৬ জন, পাবনার ১২ জন, কুষ্টিয়ার সাতজন, চুয়াডাঙ্গার চারজন, জয়পুরহাটের একজন, সিরাজগঞ্জের একজন, রংপুরের একজন এবং মেহেরপুরের একজন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

হাসপাতালে করোনা নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৪৩ জন। করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন ৬৩ জন। করোনা ধরা পড়েনি ভর্তি ২৭ জনের। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ২২ জন। এই এক দিনে হাসপাতাল ছেড়েছেন ১৫ জন। এর আগে সোমবার রামেক হাসপাতাল ল্যাবে ৯৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে করোনা ধরা পড়েছে ১১ জনের নমুনায়। 

একই দিনে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা হয়েছে আরও ১৮৭ জনের। এর মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১০ জনের। পরীক্ষার অনুপাতে রাজশাহীর ৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ নমুনায় করোনা ধরা পড়েছে। 

প্রসঙ্গত, চলতি সেপ্টেম্বরের এই ১৪ দিনে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৯২ জন। এর মধ্যে করোনায় ৩৩ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ৫১ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় সাতজনের মৃত্যু হয়।

এর আগে গত আগস্ট মাসে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৩৭৪ জন। এর মধ্যে করোনায় ১৫৪ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ১৮৬ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় ৩৪ জনের মৃত্যু হয়।

ফেরদৌস সিদ্দিকী/এসপি

Link copied