বাবার মৃত্যু শোকে মারা গেলেন মেয়েও

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, নেত্রকোনা

২২ অক্টোবর ২০২১, ০৪:০১ এএম


বাবার মৃত্যু শোকে মারা গেলেন মেয়েও

দীর্ঘদিন ধরে মরণব্যাধি ক্যানসারে ভুগছিলেন চন্দন খান (৫৫)। বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকাল ৬টার দিকে তিনি নিজ বাড়িতে মারা যান। বাবার মৃত্যু সহ্য করতে না পেরে একই দিন বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে মারা যান মেয়ে মিতু সুলতানাও (২০)। ঘটনাটি ঘটেছে নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলার সাহতা ইউনিয়নের সাহতা নয়াপাড়া গ্রামে।

চন্দন খান সাহতা নয়োড়া গ্রামের মৃত তোতা মিয়ার ছেলে এবং মিতু সুলতানা চন্দন খানের মেয়ে। মিতু নেত্রকোনা সরকারি মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলেন।

চন্দন খানের ভাতিজা আকিকুল ইসলাম খান ঢাকা পোস্টকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, তার চাচা চন্দন খান দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছিলেন। বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার দিকে নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়। বাবার মৃত্যুতে মিতু সুলতানার কান্না যেন কিছুতেই থামছিল না। কাঁদতে কাঁদতে একপর্যায়ে মিতু বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে পড়েন। দ্রুত তাকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

সাহতা গ্রামের বাসিন্দা সোহেল খান বলেন, একই দিন বাবা-মেয়ের মৃত্যুর ঘটনাটি সত্যিই মর্মান্তিক। এ ঘটনায় আমরা এলাকাবাসীও শোকাহত। এ শোক প্রকাশ করার মতো কোনো ভাষা নেই।

মো. জিয়াউর রহমান/এসকেডি

Link copied