সেই বিদ্যালয়ে যাওয়ার সেতু নির্মাণ হচ্ছে

Dhaka Post Desk

জেলা প্রতিনিধি, সিরাজগঞ্জ

২২ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:০১ পিএম


সেই বিদ্যালয়ে যাওয়ার সেতু নির্মাণ হচ্ছে

সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার পাঙ্গাসী ইউনিয়নের বেংনাই উত্তরপাড়ায় অবস্থিত বেংনাই উত্তরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ১৯৮৮ সালে স্থানীয়দের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়। ২০১৩ সালে এটি সরকারি হয়। মাঝখানে কেটে গেছে তিন দশকেরও বেশি সময়। বিদ্যালয়ে যাওয়ার রাস্তা না থাকায়  এই দীর্ঘ সময় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। 

বর্ষায় ঝুঁকি নিয়ে কলাগাছের ভেলায় চরে ও কাদা পানিতে যাতায়াত করতে হয় শিক্ষার্থীদের। শুকনা মৌসুমে অন্যের বাড়ির ওপর ও খেতের আইল দিয়ে যেতে হয় বিদ্যালয়ে। এতে কখনো কখনো জমির মালিক ও বাড়িওয়ালাদের গালাগালিও শুনতে হয়। 

বেংনাই উত্তরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দীর্ঘদিনের ভোগান্তি তুলে ধরে গত বছরের ২৫ সেপ্টেম্বর ‘৩৩ বছরের কষ্টের অবসান চায় কোমলমতি শিশুরা’ শিরোনামে ঢাকা পোস্টে একটি ভিডিওসহ প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। যা নজরে আসে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন, বিএডিসিসহ নানা দফতরের। এর প্রেক্ষিতে উপজেলা চেয়ারম্যানের আহ্বানে সেখানে একটি সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি)। 

শনিবার (২২ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে সেতু নির্মাণের জন্য স্কুলের রাস্তা ও সেই জায়গাটি পরিদর্শন করেন বিএডিসির সিরাজগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী মাজুদ আলম। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন বিএডিসির রায়গঞ্জের দায়িত্বে থাকা সহকারী প্রকৌশলী মোসাদ্দেক হোসেন জীবন ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী আরাফাত রহমান।

Dhaka Post

সহকারী প্রকৌশলী মোসাদ্দেক হোসেন জীবন ঢাকা পোস্টকে বলেন, স্কুলটি আমাদের কাছে হলেও আমরা বিষয়টি জানতাম না। ঢাকা পোস্টে প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পরে আমরা বিষয়টি জানতে পারি। এরপরেই আমরা এখানে একটি সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নিই। এর প্রেক্ষিতেই আজ নির্বাহী প্রকৌশলী স্যার নিজে জায়গাটি পরিদর্শন করেছেন। এছাড়াও উপজেলা চেয়ারম্যান নিজে আমাকে বার বার এই সেতুটি নির্মাণের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। তার এই আন্তরিকতাই এটাকে আরও এগিয়ে নিয়ে এসেছে।

বিএডিসির সিরাজগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী মাজুদ আলম বলেন, মূলত ঢাকা পোস্টে একটি প্রতিবেদন দেখেই বিষয়টি আমাদের নজরে আসে। পরবর্তীতে রায়গঞ্জের সহকারী প্রকৌশলীকে বিষয়টি দেখতে বলি। তিনি দেখে এখানে সেতু নির্মাণ করা যাবে মর্মে প্রাথমিকভাবে প্রতিবেদন দেন। এছাড়াও উপজেলা চেয়ারম্যান ইমরুল হোসেন তালুকদার ইমনও আমাকে বিষয়টি দেখার আহ্বান জানান। এ প্রেক্ষিতেই আমরা এখানে একটি সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছি। এখানে ৩৩ ফুট দীর্ঘ ও ১১ ফুট উচ্চতার একটি সেতু করার ইচ্ছা আছে। 

তিনি আরও বলেন, যেহেতু কিছু সরকারি নিয়ম আছে, সেগুলোর কার্যপ্রণালী ঠিক করতে একটু সময় লাগবে। এর বাইরে আমার ঠিকাদার প্রস্তুত আছে। ফলে কাজ শুরু করলে দেড় থেকে দুই মাসেই সেতু নির্মাণ সম্পন্ন হয়ে যাবে।

রায়গঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ইমরুল হোসেন তালুকদার ইমন ঢাকা পোস্টকে বলেন, প্রতিবেদনটি দেখার পরে আমি নিজে উদ্যোগ নিয়ে কয়েকটি দফতরে বিষয়টি দেখার জন্য আহ্বান জানাই। এর মধ্যে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন খুব দ্রুতই আমার আহ্বানে সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসে। এছাড়াও সেখানে সেতু নির্মাণ সম্পন্ন হলে আমি সেতুর সংযোগ ও স্কুল পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ করে দিব। 

এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বেংনাই উত্তরপাড়ায় অবস্থিত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শেখ আব্দুর রহিম মাস্টার, প্রধান শিক্ষক উম্মে জান্নাতী, সহকারী শিক্ষক মো. লিয়াকত আলী ও স্থানীয়রা। 

শুভ কুমার ঘোষ/আরএআার

Link copied