ওষুধ শিল্পের প্যাটেন্ট আইন সংশোধনের আহ্বান

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

১০ আগস্ট ২০২২, ০৭:০৪ পিএম


ওষুধ শিল্পের প্যাটেন্ট আইন সংশোধনের আহ্বান

স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের প্রেক্ষাপটে স্থানীয় ওষুধ শিল্পের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে প্যাটেন্ট আইন সংশোধনের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান। 

বুধবার (১০ আগস্ট) রাজধানীর এনইসি সম্মেলন কক্ষে ‘প্রিপ্রেয়ার্ডনেস অব ফার্মাসিউটিক্যালয সেক্টর ফর এলডিসি গ্রাজুয়েশন’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। 

সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব জাকিয়া সুলতানা, বিল্ডের চেয়ারপারসন নিহাদ কবির এবং ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট রিজওয়ান রাহমান। সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব শরিফা খান।

সালমান এফ রহমান বলেন, স্থানীয় ওষুধ শিল্পের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে প্যাটেন্ট আইন সংশোধনের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। এ ছাড়া স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের পরও টিআরআইপিএস চুক্তির আওতায় স্বল্পোন্নত দেশ হিসেবে প্রাপ্ত বিশেষ সুবিধাসমূহ অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় প্রয়োজনীয় প্রচার প্রচারণা চালাতে হবে।

তিনি বলেন, অবিলম্বে এপিআই পার্কে উৎপাদন কার্যক্রম শুরু করার উপর জোর দিতে হবে। ওধুধ শিল্পে ভবিষ্যতে আরও সম্ভাবনার দ্বার উন্মোচিত হবে এবং এসব সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে এ শিল্পের আরও উন্নয়ন করা সম্ভব। 

একইসঙ্গে স্থানীয়ভাবে প্রস্তুতকৃত ওষুধ পণ্যের প্যাটেন্টের আবেদন জমা দেওয়ার জন্য গত ২০০৮ সালে প্রতিষ্ঠিত মেইলবক্সের ব্যবস্থাটি পরিবর্তিত পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে তিনি বিলোপের আহ্বান জানান।
 
এলডিসি উত্তরণ পরবর্তী সময়ের জন্য ওষুধ শিল্পকে প্রস্তুত করার লক্ষ্যে সরকারি খাত, বেসরকারি খাত এবং শিল্প খাতের প্রতিনিধিদের মধ্যে একটি শক্তিশালী অংশীদারত্বমূলক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার ওপর জোর দেন ইআরডি সচিব শরিফা খান।

শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব জাকিয়া সুলতানা বলেন, সংশ্লিষ্ট বেসরকারি খাত বিশেষত ওষুধ শিল্পের সঙ্গে নিবিড় আলাপ-আলোচনার মাধ্যমেই প্যাটেন্ট আইন সংশোধন করা হবে।

বাংলাদেশের প্যাটেন্ট আইনে প্যাটেন্ট প্রদানের ক্ষেত্রে সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতা ও জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার বিষয় বিবেচনায় নেয়ার আহ্বান জানান বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির সভাপতি নাজমুল হাসান।  

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট রিজওয়ান রাহমান বলেন, জৈব প্রযুক্তিগত গবেষণার উৎকর্ষ সাধনের লক্ষ্যে দেশে বায়োটেক পার্ক ও জেনোম ভ্যালি প্রতিষ্ঠা করা প্রয়োজন।  

ওষুধ শিল্পে পোশাক খাতের ন্যায় প্রণোদনা দেওয়ার ওপর গুরুত্ব দেন তিনি। 
 

এসআর/আরএইচ

Link copied