আর্থিক লেনদেন নয়, ভারতে ক্রিপ্টোকারেন্সির ভিন্ন ব্যবহারের চিন্তা

Dhaka Post Desk

ঢাকা পোস্ট ডেস্ক

১৮ নভেম্বর ২০২১, ১১:৪২ এএম


আর্থিক লেনদেন নয়, ভারতে ক্রিপ্টোকারেন্সির ভিন্ন ব্যবহারের চিন্তা

বিশ্বজুড়ে ক্রিপ্টোকারেন্সির বাজার বাড়ছে। ব্যতিক্রম নয় ভারতেও। শুধু বিটকয়েনই নয়, ডগিকয়েন বা ইথারেনিয়ামের মতো ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলোর বাজারও দেশটিতে দ্রুত বাড়ছে। ভারতীয় বাজারে এসে গেছে ক্রিপ্টোকারেন্সির এক্সচেঞ্জও। এরই মধ্যে ভারতে ক্রিপ্টোর ভবিষ্যৎ নিয়ে নতুন করে চিন্তা ভাবনা করছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার।

এখন পর্যন্ত পরিস্থিতি যেদিকে এগোচ্ছে, তাতে ক্রিপ্টোকারেন্সিকে আর্থিক লেনদেনের মাধ্যম বা পেমেন্টের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহারের অনুমতি নাও দিতে পারে ভারত সরকার। তবে এটিকে অনেকটা সোনা, শেয়ার বা বন্ডের মতো করে ব্যবহার করা যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

সূত্রের খবর, ভারতীয় বাজারে ক্রিপ্টোকারেন্সির ভবিষ্যৎ কী হতে চলেছে, তা নিয়ে শিগগিরই একটি বিল আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। জানা গেছে, ইতোমধ্যে সেই বিলের খসড়া তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেছে। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ক্রিপ্টোকারেন্সি সংক্রান্ত ওই বিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় পেশ করা হতে পারে বলে খবর। জানা গেছে, এক্ষেত্রে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড অব ইন্ডিয়াকে দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে ক্রিপ্টোকারেন্সির ওপর নজরদারি চালানোর জন্য। তবে এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনও কিছু নেওয়া হয়নি।

ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলোও ভারতীয় বাজারে নিজের জায়গা তৈরি করতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে সোমবার বৈঠকে বসেছিল ভারতীয় সংসদের অর্থনীতি বিষয়ক প্যানেল। বৈঠকে বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে ক্রিপ্টো অর্থনীতি।

সোমবার বিজেপির সংসদ সদস্য জয়ন্ত সিনহার সভাপতিত্বে ভারতীয় সংসদের অর্থনীতি বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটি বৈঠকে বসেছিল ক্রিপ্টো এক্সচেঞ্জ এবং ব্লক চেন অ্যান্ড ক্রিপ্টো অ্যাসেট কাউন্সিলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে। সে দিন সংসদীয় প্যানেলের বৈঠকে বলা হয়েছে, ক্রিপ্টোকারেন্সিকে আটকে রাখা যাবে না। তবে এটির ওপর নজরদারি ব্যবস্থা করা দরকার। বৈঠকে সংসদ সদস্যরা বলেন, বিনিয়োগকারীদের আর্থিক নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করাটা সবচেয়ে বড় উদ্বেগের বিষয়। উল্লেখ্য, এখনও পর্যন্ত এল সালভাদর ছাড়া আর কোনো দেশ ক্রিপ্টোকারেন্সিকে আইনত বৈধ ঘোষণা করেনি।

ক্রিপ্টোকারেন্সির ওপর নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য ভারতের অর্থ মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে বিভিন্ন স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক করেছে। উল্লেখ্য, আগে রিজার্ভ ব্যাংক অব ইন্ডিয়া এবং সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড অব ইন্ডিয়া ভারতে ক্রিপ্টোকারেন্সির অনিয়ন্ত্রিত বৃদ্ধির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

রিজার্ভ ব্যাংকের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস সম্প্রতি বলেছিলেন, ‘ক্রিপ্টো এ মুহূর্তে আর্থিক স্থিতিশীলতার দিক থেকে আমাদের কাছে গুরুতর উদ্বেগের একটি বিষয়। কীভাবে সমস্যাটি মোকাবিলা করতে হবে – তা নিয়ে আমরা সরকারকে আমাদের বিশদ পরামর্শ দিয়েছি। যতদূর আমি জানি, বিষয়টি নিয়ে সরকার সক্রিয় আলোচনা চালাবে এবং সেই অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেবে।’

সূত্র: টিভি৯বাংলা

এসএসএইচ

Link copied