অপ্রচলিত বাজারে পোশাক রফতানি বেড়েছে ২৪ শতাংশ

Dhaka Post Desk

ঢাকা পোস্ট ডেস্ক

১৯ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:০০ এএম


অপ্রচলিত বাজারে পোশাক রফতানি বেড়েছে ২৪ শতাংশ

চলতি (২০২১-২২) অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে (জুলাই-ডিসেম্বর) অপ্রচলিত বাজারে ৩০৬ কোটি মার্কিন ডলারের পোশাক রফতানি করেছে বাংলাদেশ; যা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ২৪ দশমিক ২৬ শতাংশ বেশি। 

রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) হালনাগাদ পরিসংখ্যান থেকে এই তথ্য পাওয়া গেছে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বাসস। 

এ বিষয়ে রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, সাধারণত যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ইউরোপীয় দেশগুলো পোশাক রফতানির প্রচলিত বাজার হিসেবে পরিচিত। কিন্তু এর বাইরে চিলি, চীন, জাপান, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, মেক্সিকো, তুরষ্ক, দক্ষিণ আফ্রিকা ও রাশিয়ার বাজার পোশাক রফতানির নতুন বাজার হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। এ দেশগুলোতে পোশাক রফতানি গাণিতিক হারে বাড়ছে।

ইপিবির তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের জুলাই-ডিসেম্বর মাসে শুধু জাপানের বাজারে ৫২ কোটি ৯৪ লাখ ডলারের পোশাক রফতানি হয়েছে; গত বছরের একই সময়ে যার পরিমাণ ছিল ৪৪ কোটি ৫১ লাখ ডলার। অর্থাৎ গত বছরের তুলনায় এবার জাপানে পোশাক রফতানি বেড়েছে ১৮ দশমিক ৯৩ শতাংশ। আর এ সময়ে রাশিয়া বাংলাদেশ থেকে ৩৪ কোটি ১২ লাখ ডলারের পোশাক আমদানি করেছে। গত অর্থবছরের একইসময়ে দেশটির বাংলাদেশ থেকে পোশাক আমদানির পরিমাণ ছিল ২৪ কোটি ৭০ লাখ ডলার। ফলে বিগত বছরের একই সময়ের তুলনায় এ বছর রাশিয়ায় রফতানি বেড়েছে ৩৮ দশমিক ১০ শতাংশ। 

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ চিলিতে ২০২১-২২ অর্থবছরের জুলাই-ডিসেম্বর সময়ে বাংলাদেশের পোশাক রফতানি হয়েছে ৮ কোটি ১৭ লাখ ডলারের, এর আগের বছরে একইসময়ে যার পরিমাণ ছিল ৩ কোটি ৮৮ লাখ ডলার। এক বছরের ব্যবধানে সেখানে রফতানি বৃদ্ধি পেয়েছে ১১০ দশমিক ৫৯ শতাংশ। 

এই সময়ে ভারতের বাজারে পোশাক রফতানি হয়েছে ৩৬ কোটি ৫৯ লাখ ডলার। গত বছর একই সময়ের ভারত থেকে পোশাক রফতানি আয় ছিল ২৩ কোটি ১৫ লাখ ডলার। অর্থাৎ এক বছরের ব্যবধানে ভারতে পোশাক রফতানি থেকে আয় বেড়েছে ৫৮ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ। এছাড়া এ সময়ে অস্ট্রেলিয়ায় পোশাক রফতানি হয়েছে ৩৯ কোটি ৮৮ লাখ ডলারের। গত অর্থবছরের একইসময়ে এর পরিমাণ ছিল ৩৬ কোটি ৪৫ লাখ ডলার। ফলে এক বছরের ব্যবধানে অপ্রচলিত এই বাজারে পোশাক রফতানি বেড়েছে ৯ দশমিক ৪২ শতাংশ। 

এদিকে, মেক্সিকোতে আলোচিত সময়ে পোশাক রফতানি হয়েছে ১২ কোটি ৩০ লাখ ডলারের; গত বছরের একই সময়ে দেশটিতে এ পরিমাণ ছিল ৭ কোটি ১০ লাখ ডলার। বছরের ব্যবধানে দেশটিতে রফতানি আয় বেড়েছে ৬৮ দশমিক ৩৮ শতাংশ।

ইপিবির তথ্য অনুযায়ী, ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে বাংলাদেশের পোশাক পণ্য রফতানি বেড়েছে ২৮ শতাংশের ওপরে। এ সময়ে ১ হাজার ৯৯০ কোটি ডলারের পোশাক রফতানি হয়েছে। কোভিড পরিস্থিতির কারণে ২০২০ সালে বিশ্বব্যাপী পোশাক পণ্য বেচাকেনা অনেকটাই কমে গিয়েছিল। তবে ২০২১ সালে সেই পরিস্থিতির পরিবর্তন হতে থাকে, যার ফলে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা ও ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ অন্যান্য দেশে বাংলাদেশ থেকে পোশাক আমদানির পরিমাণ অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। 

সূত্র: বাসস। 

এনএফ

Link copied