নগদ লভ্যাংশ দেবে আমান কটন আর বোনাস দেবে প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

২৫ মার্চ ২০২১, ১২:০৩

নগদ লভ্যাংশ দেবে আমান কটন আর বোনাস দেবে প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স

শেয়ারহোল্ডারদের এক টাকা করে নগদ লভ্যাংশ দেবে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানি আমান কটন ফাইবার্স লিমিটেড। একই সময়ের জন্য ১৭ শতাংশ হারে বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দেবে বিমা খাতের কোম্পানি প্রভাতী ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড। বুধবার (২৪ মার্চ) কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ মার্চ) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। তথ্য মতে, ২০০৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের পর্ষদ ৩১ ডিসেম্বর ২০২০ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে শেয়ারহোল্ডারদের ১৭ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর আগের ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল।

বিদায়ী বছরে ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩ টাকা ১০ পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি প্রকৃত সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ২১ টাকার ১১ পয়সা।

ঘোষিত লভ্যাংশ শেয়ারহোল্ডারদের সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা বা এজিএমের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ৩০ মে। তার জন্য কোম্পানি রেকর্ড তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ১৯ এপ্রিল।

দুই কোটি ৯৭ লাখ দুই হাজার ৫০৫টি শেয়ারধারীদের মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে রয়েছে ৩০ শতাংশ, প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে ১৩ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে ৫৬ শতাংশ শেয়ার।

অপরদিকে আমান কটন ফাইবার্স লিমিটেডের পর্ষদ ৩০ জুন ২০২০ সমাপ্ত অর্থবছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ শেয়ার প্রতি এক টাকা নগদ লভ্যাংশ পাবেন শেয়ারহোল্ডাররা।

ঘোষিত লভ্যাংশ শেয়ারহোল্ডারদের সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা বা এজিএমের দিন নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২ মে। সেই লক্ষ্যে রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৮ এপ্রিল।

২০১৮ সালে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির বিদায়ী বছরে শেয়ারপ্রতি আয় হয়েছে ৪৮ পয়সা। আর কোম্পানির শেয়ারপ্রতি প্রকৃত সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩৯ টাকা ৬৮ পয়সা।

১০ কোটি আট লাখ ৩৩ হাজার ৩৩৩টি শেয়ারধারীদের মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে রয়েছে ৭২ শতাংশ, প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে আট ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে ১৯ শতাংশ শেয়ার।

এমআই/ওএফ

Link copied