ডিএসই থেকে দ্বিগুণ রাজস্ব পেল সরকার

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

০৮ এপ্রিল ২০২১, ১০:৪১

ডিএসই থেকে দ্বিগুণ রাজস্ব পেল সরকার

ডিএসই টাওয়ার

গেল ফেব্রুয়ারি মাসের তুলনায় মার্চ মাসে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) থেকে সরকারের রাজস্ব আয় প্রায় দ্বিগুণ বেড়েছে। লেনদেন বাড়ায় সরকার রাজস্ব বেশি পেয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ডিএসইর তথ্য অনুসারে, মার্চ মাসে বাজারে মোট ১৪ হাজার ৮৮০ কোটি ৪০ লাখ ৯১ হাজার ৬৩ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্য থেকে দুই ধরনের কর বাবদ ডিএসই মোট ২৭ কোটি ৬০ লাখ ৪৪ হাজার ১২৭ টাকা রাজস্ব আয় জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) দিয়েছে। ডিএসই থেকে ফেব্রুয়ারি মাসে সরকারে রাজস্ব আয় হয়েছিল ১৫ কোটি ৬৫ লাখ ৪২ হাজার ২৪৫ টাকা। অর্থাৎ এক মাসের ব্যবধানে রাজস্ব আয় ১১ কোটি ৯৫ লাখ ১ হাজার ৮৮২ টাকা বেড়েছে, যা প্রায় দ্বিগুণ।

দুই ধরনের করের মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের শেয়ার ও ইউনিট কেনাবেচার মাধ্যমে লেনদেন (রাজস্ব আইন-৫৩-বিবিবি অনুসারে) থেকে রাজস্ব আয় হয়েছে ১৪ কোটি ৪৭ লাখ ৭৬ হাজার ৭০২ টাকা। আর উদ্যোক্তা-পরিচালকের শেয়ার বিক্রি (৫৩ এম অনুসারে) থেকে রাজস্ব আয় হয়েছে ১৩ কোটি ১২ লাখ ৬৭ হাজার ৪২৫ টাকা।

ফেব্রুয়ারিতে ১৮ কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছে ১৪ হাজার ৪৪৮ কোটি ৯৯ লাখ ২৮ হাজার টাকার শেয়ার। এর মধ্য থেকে সরকার কর বাবদ রাজস্ব পেয়েছে ১৫ কোটি ৬৫ লাখ ৪২ হাজার ২৪৫ টাকা।

এর আগে জানুয়ারিতে ডিএসইতে ৩৩ হাজার ৯৫৮ কোটি ৭৫ লাখ ৯ হাজার টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়। সরকার ডিএসই থেকে রাজস্ব পায় ৩৯ কোটি ৪ লাখ ৭৬ হাজার ২২২ টাকা।

ডিএসইর তথ্যানুযায়ী, ২০২০ সালে ডিএসই থেকে সরকার রাজস্ব পেয়েছে ১৮৫ কোটি ৩ লাখ ২২ হাজার ৫১ টাকা। করোনা পরিস্থিতিতে ২ মাস পুঁজিবাজার বন্ধ থাকার পরও গত বছর ২০৮ দিন লেনদেন হয়। মোট লেনদেন হয়েছে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৯৮১ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার, যা আগের বছরের চেয়ে ২১ হাজার ১৫৯ কোটি ৩৩ লাখ টাকা বেশি। ফলে ডিএসই থেকে সরকারের রাজস্ব আয় হয়েছে ১৮৫ কোটি ৩ লাখ ২২ হাজার ৫১ টাকা।

২০১৯ সালে ডিএসইতে মোট লেনদেনের হয়েছিল ১ লাখ ১৩ হাজার ৮২১ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। তার আগের বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে লেনদেন হয়েছিল ১ লাখ ৩৩ হাজার ৫৯১ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। সে হিসাবে দেখা যায়, গত তিন বছরের মধ্যে ২০২০ সালে লেনদেন বেশি হয়েছে। লেনদেন বেশি হওয়ায় সরকার দেশের প্রধান পুঁজিবাজার থেকে রাজস্ব আয় বেশি পেয়েছে।

এমআই/এসএসএইচ

Link copied