ক্ষুদে ডাক্তারের মাধ্যমে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ২২-২৮ জানুয়ারি

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১২:২১ পিএম


ক্ষুদে ডাক্তারের মাধ্যমে স্বাস্থ্য পরীক্ষা ২২-২৮ জানুয়ারি

স্বাস্থ্য অধিদফতর ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের যৌথ উদ্যোগে পরিচালিত ক্ষুদে ডাক্তার কার্যক্রমের আওতায় কিন্ডারগার্টেন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং সমপর্যায়ের মাদরাসাসহ দেশের সকল সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্ষুদে ডাক্তারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে আগামী ২২ থেকে ২৮ জানুয়ারি।

এজন্য শিক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ক্ষুদে ডাক্তারের দল গঠন করা হবে। প্রাথমিক প্রশিক্ষণের ভিত্তিতে তারা শিক্ষার্থীদের ওজন, উচ্চতা ও দৃষ্টি শক্তি পরীক্ষা করে অস্বাভাবিক শারীরিক বৃদ্ধি, দৃষ্টি শক্তির ত্রুটিসহ নানা বিষয় গাইড শিক্ষকের নজরে আনবেন।

শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার বিষয়টি জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের জানাতে বলেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। গত ১০ জানুয়ারি বিষয়টি জানিয়ে মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরে চিঠি পাঠায় স্বাস্থ্য অধিদফতর। সে অনুযায়ী রোববার (১৬ জানুয়ারি) বিষয়টি সব সরকারি-বেসরকারি মাদরাসা প্রধানকে জানিয়েছে মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতর।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, ২২ জানুয়ারি থেকে ২৮ জানুয়ারি পর্যন্ত কিন্ডারগার্টেন, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং সমপর্যায়ের মাদরাসাসহ সরকারি-বেসরকারি সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্ষুদে ডাক্তার কর্তৃক শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হবে। স্বাস্থ্য পরীক্ষায় গঠিত ক্ষুদে ডাক্তার দল তাদের জন্য নির্ধারিত শ্রেণির সকল শিক্ষার্থীর ওজন, উচ্চতা ও দৃষ্টি শক্তি পরিমাপসহ অনুষাঙ্গিক অন্যান্য তথ্য সংগ্রহ করে তা স্বাস্থ্য পরীক্ষার ফরমে লিপিবদ্ধ করবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে ক্ষুদে ডাক্তার দল গঠন এবং তাদের মাধ্যমে স্বাস্থ্য পরীক্ষা একটি অভিনব কার্যক্রম যাতে শিক্ষার্থীদের অনুপ্রাণিত হওয়ার ও দলগতভাবে কাজ করার এমনকি সুশৃঙ্খলভাবে বেড়ে ওঠার সুযোগ রয়েছে। স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে গিয়ে ক্ষুদে ডাক্তারের দল কোনো শিক্ষার্থীর অস্বাভাবিক বৃদ্ধিসহ দৃষ্টি শক্তিতে ত্রুটি কিংবা স্বাস্থ্য পরীক্ষার ফরমে উল্লেখিত অন্যান্য বিষয়াদির তথ্যও গাইড শিক্ষকের নজরে আনতে পারছে এবং বিষয়গুলো প্রাথমিক পর্যায়েই সংশোধনের ব্যাপারেও সহায়ক ভূমিকা রাখছে।

এ কার্যক্রমকে সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এবতেদায়ী ও দাখিল পর্যায়ের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষককে বিষয়টি জানাতে মাদরাসার শিক্ষা অধিদফতরকে বলেছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। সংশ্লিষ্ট সকল জেলা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাকে এ ব্যাপারে লিখিত নির্দেশনা দিতেও অধিদফতরকে বলা হয়েছে।

এএজে/এনএফ

Link copied