হেনস্তার জবাবে পরিচালককে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করেন এষা

Dhaka Post Desk

বিনোদন ডেস্ক

২৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:৩৮ এএম


হেনস্তার জবাবে পরিচালককে ক্ষমা চাইতে বাধ্য করেন এষা

কাস্টিং কাউচ। কোনো নতুন শব্দ নয়। অনেক অভিজ্ঞতা কাস্টিং কাউচ নিয়ে শেয়ার করেন বিভিন্ন পেশাদাররা। আসলে সব পেশাতেই কাস্টিং কাউচের সমস্যা হয়তো রয়েছে। কিন্তু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির কাস্টিং কাউচ নিয়ে অনেক বেশি চর্চা হয় বলে দাবি করেন শিল্পীদের বড় অংশ। 

অনেকেই এ নিয়ে প্রকাশ্যে মুখ খুলেছেন। কাস্টিং কাউচ ছাড়াও মৌখিকভাবেও হেনস্তার শিকার হতে হয় কোনো কোনো শিল্পীকে। নিজের তেমন অভিজ্ঞতা নিয়েই মুখ খুলেছেন বলিউড অভিনেত্রী এষা গুপ্তা।

সম্প্রতি এষা জানিয়েছেন, এক পরিচালক তাকে হেনস্তা করেন। সেই মুহূর্তে নাকি শুটিং ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন এষা। ওই পরিচালক তার কাছে ক্ষমা চাওয়ার পর তিনি আবার শুটিং করতে যান। তবে পরিচালক ক্ষমা চাইতে নাকি দুদিন সময় নিয়েছিলেন। সেই দুদিন শুটিং বন্ধ রেখেছিলেন এষা।

এষা জানান, ওই ছবির শুটিংয়ে তার কস্টিউম নিয়ে কিছু সমস্যা হয়েছিল। তা পরিচালককে জানানো হয়নি। ফলে অভিনেত্রী সেটে যাওয়ার পরই নাকি পরিচালক তাকে হেনস্তা করতে শুরু করেন। যার প্রতিবাদ করেন এষা। 

তিনি বলেন, “পরিচালক আমাকে খারাপভাবে বলেছিলেন, আমি দেরিতে পৌঁছেছি। আসলে তা নয়। আমি সকলের আগে শুটিংয়ে পৌঁছেছিলাম। কিন্তু কস্টিউমের সমস্যার কারণে দেরি হয়। তাতে আমার কোনো দোষ ছিল না। প্রথমবার চুপ করে ছিলাম। দ্বিতীয়বার অপমান করায় বেরিয়ে যাই।”

ওই ঘটনার পর নাকি প্রযোজক, এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসার সকলে ফোন করে এষার কাছে ক্ষমা চান। কিন্তু অভিনেত্রীর শর্ত ছিল পরিচালককে ক্ষমা চাইতে হবে। দুদিন পরে হলেও পরিচালক ক্ষমা চেয়েছিলেন। তারপর এষা ফের শুটিং শুরু করেন। ২০১২-এ ইমরান হাশমির বিপরীতে ‘জান্নাত ২’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে ডেবিউ করেন এষা। ‘হামশকল’, ‘রুস্তম’, ‘বাদশাহ’র মতো ছবিতে কাজ করেছেন তিনি।

এইচকে 

Link copied