দেশে ১০ শতাংশ দম্পতির বন্ধ্যাত্বের সমস্যা রয়েছে

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৩ মে ২০২১, ০৮:৩৮ পিএম


দেশে ১০ শতাংশ দম্পতির বন্ধ্যাত্বের সমস্যা রয়েছে

দেশে ১০ শতাংশ দম্পতির বন্ধ্যাত্বের কোনো না কোনো সমস্যা রয়েছে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ।

রোববার (২৩ মে) বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস অ্যান্ড গাইনি বিভাগ আয়োজিত বৈজ্ঞানিক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য এ তথ্য জানান। ইনফার্টিলিটি বা বন্ধ্যাত্বের সমস্যা ও সমাধানের চ্যালেঞ্জসমূহ চিহ্নিত করা, উত্তরণের উপায় খুঁজে বের করাসহ সর্বাধুনিক চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করার বিষয়ে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের অংশগ্রহণে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

তিনি বলেন, বিশ্বের ১৬৮ মিলিয়ন দম্পতি ইনফার্টিলিটির সমস্যায় ভুগছেন। এছাড়াও দেশে ১০ শতাংশ দম্পতির বন্ধ্যাত্বের কোনো না কোনো সমস্যা রয়েছে। যা বৈবাহিক জীবন, পারিবারিক জীবন ও সামাজিক জীবনে নানা সমস্যা তৈরি করছে। তাই রোগীদের বন্ধ্যাত্বের সঠিক কারণ চিহ্নিত করার সাথে সাথে সর্বাধুনিক চিকিৎসা প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে এ সমস্যা দূর করতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।

উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বন্ধ্যাত্বের সমস্যা দূরীকরণে গবেষণা ও বিশ্বব্যাপী পারস্পরিক সহযোগিতামূলক কার্যক্রম জোরদার করতে হবে। এক্ষেত্রে সর্বাধুনিক চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করার মাধ্যমে নিঃসন্তান দম্পতিদের হাহাকার দূর করতে হবে। 

Dhaka Post
অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ

এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস এন্ড গাইনি বিভাগ, রিপ্রোডাকটিভ এন্ডোক্রাইনোলজি অ্যান্ড ইনফার্টিলিটি বিভাগ যাতে বন্ধ্যাত্বের সমস্যা দূরীকরণে বিরাট অবদান রাখতে পারে সেক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস প্রদান করেন।

বৈজ্ঞানিক সেমিনারে বিএসএমএমইউ-এর উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. জাহিদ হোসেন, অবস গাইনি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. তৃপ্তি রাণী দাস, যুক্তরাজ্যের লন্ডনের হোমারটন ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডা. অনিল গুডি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এদিকে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ আজ (রোববার) তার কার্যালয়ে প্রশাসনিক মিটিং এবং উপ-উপাচার্য শিক্ষা অফিসে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ এক সভায় অংশ নেন। এছাড়াও তিনি ক্যাম্পাসে রাউন্ড দেন এবং কমিউনিটি অফথালমোলজি বিভাগে ল্যাকরিমাল গ্ল্যান্ড টিউমার বিষয়ে মূল্যবান লেকচার প্রদান করেন।

দ্বিতীয় ডোজের ভ্যাকসিন নিলেন ১৯৯ জন
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কনভেনশন সেন্টারে রবিবার (২৩ মে) ১৯৯ জন কোভিড-১৯ এর দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন। সব মিলিয়ে বিএসএমএমইউতে এই পর্যন্ত দ্বিতীয় ডোজের টিকা নিয়েছেন ৪২ হাজার ৫ শত ৬৫ জন।

এদিকে, বেতার ভবনের ফিভার ক্লিনিকে আজ (রোববার) পর্যন্ত ৯৬ হাজার ৪ শত ৪৮ জন রোগী চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন। অন্যদিকে, করোনা ইউনিটে ৮ হাজার ৭ শত ৪৮ জন রোগী সেবা নিয়েছেন। ভর্তি হয়েছেন ৪ হাজার ৯ শত ১৪ জন। সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ৪ হাজার ১ শত ৮৯ জন। বর্তমানে ভর্তি আছেন ৫৭ জন রোগী এবং আইসিইউতে ভর্তি আছেন ৬ জন রোগী। গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৫ জন।

টিআই/এইচকে

Link copied