ডেল্টাক্রন নিয়ে সর্বশেষ যা জানা যাচ্ছে

Dhaka Post Desk

ঢাকা পোস্ট ডেস্ক

২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২:৫১ পিএম


ডেল্টাক্রন নিয়ে সর্বশেষ যা জানা যাচ্ছে

জানুয়ারির ৭ তারিখে সাইপ্রাসের বিজ্ঞানীরা সার্স-কোভ-২ এর নতুন একটি ভ্যারিয়েন্ট পাওয়ার কথা জানান। এর নাম দেওয়া হয় ডেল্টাক্রন। বিজ্ঞানীরা বলছেন এটা ডেল্টা এবং ওমিক্রনের একটা হাইব্রিড। 

সাইপ্রাসের যে বিজ্ঞানীরা নতুন এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়ার কথা জানিয়েছিলেন তাদের নেতৃত্বে ছিলেন লিওন্ডিওস কোস্ত্রিকিস নামে একজন চিকিৎসক। 

তিনি বলেন, নতুন এই ভ্যারিয়েন্টটির জিনোমের সঙ্গে মিল রয়েছে ডেল্টার, আর বৈশিষ্ট্য ওমিক্রনের মতো। ওই বিজ্ঞানী জানান যে, এ পর্যন্ত ২৫ জন এই ডেল্টাক্রনে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে কয়েকজন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। 

ল্যাব থেকে উৎপত্তির দাবি
ডেল্টাক্রনের সন্ধানের খবরটি ব্যাপক আকারে প্রচারিত হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এ নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা কিছু বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। 

যুক্তরাজ্যের ওয়েলকাম স্যাঙ্গার ইনস্টিটিউটের কোভিড-১৯ জিনোমিক ইনিশিয়েটিভের পরিচালক ড. জেফরি ব্যারেটের বিশ্বাস এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়ার খবরটির সঙ্গে ল্যাবের কোনো ত্রুটির যোগসূত্র রয়েছে। 

তিনি বলেন, ডেল্টা এবং ওমিক্রনের ধারার কোনো বায়োলোজিক্যাল রিকম্বিন্যান্ট এটা নয়। 

ইম্পেরিয়াল কলেজ লন্ডনের একজন ভাইরোলজিস্ট ড. টিম পিকক টুইটারে লিখেছেন, বেশ কটি বড় মিডিয়াতে ডেল্টাক্রনের যে খবর এসেছে, তা ত্রুটিপূর্ণ বলেই মনে হচ্ছে। 

আরেকটা টুইটে তিনি লিখেছেন, অসাবধানতার কারণে এটা হয়েছে, ব্যাপারটা এমন না। এমন ঘটনা আসলে প্রায়ই ঘটে।  

বেশ কয়েকজন বিশেষজ্ঞ বলছেন, ডেল্টাক্রন যদি আসলেও নতুন কোনো রিকম্বিন্যান্ট ভ্যারিয়েন্ট হতো তাহলে এর ফাইলোজেনেটিক সোর্সে যে মিল থাকতো এখানে সেটা পাওয়া যাচ্ছে না। এ থেকেই ডেল্টাক্রনে একটা ত্রুটির ইঙ্গিত পাওয়া যায়। 

ডেল্টাক্রনের পক্ষে যা বলা হচ্ছে 
এসব বক্তব্যের বিরোধিতা করছেন কোস্ত্রিকিস। তিনি বলছেন, ডেল্টাক্রনে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের মধ্যে যেহেতু ইনফেকশন রেট হাসপাতালে ভর্তি না হওয়া রোগীদের চেয়ে বেশি পাওয়া যাচ্ছে, তাই এখানে ত্রুটির সম্ভাবনা আসলে কম।    

একইসঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, আর এই নমুনাগুলোর সিকোয়েন্সিং প্রসিডিউর যেহেতু একাধিক দেশে হয়েছে, তাই এখানে ল্যাব-এররের সম্ভাবনাও কমে যায়। 

সাইপ্রাসের এই বিজ্ঞানীরা নতুন করে আরও ৫২ জনের ডেল্টাক্রনে আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়েছেন। তাদের এই বিজ্ঞানীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রীও। তিনি বলছেন, অভূতপূর্ব এই গবেষণার কারণে এই বিজ্ঞানীদের নিয়ে তিনি গর্বিত। 

আরও প্রমাণ প্রয়োজন 
বিশেষজ্ঞদের কেউ কেউ ডেল্টাক্রন নতুন কোনো হাইব্রিড ভ্যারিয়েন্ট নয় বলে ঘোষণা করে দিলেও কোনো কোনো বিজ্ঞানী এখনই কোনো সিদ্ধান্তে আসতে চান না। 

যুক্তরাষ্ট্রের ভ্যানডারবিল্ট ইউনিভার্সিটি মেডিকেল সেন্টারের ইনফেকশাস ডিজিজের অধ্যাপক ড. উইলিয়াম শাফনার মেডিকেল নিউজ টুডেকে বলেছেন, সাইপ্রাসের বিষয়টা নিয়ে আরও বিশদ গবেষণা প্রয়োজন। গোটা বিশ্ব সেদিকে নজর রাখছে। 

যেকোনো প্রমাণ, সেটা সাইপ্রাস থেকে আসুক বা অন্য কোথাও থেকে আসুক সেটা নিয়ে প্রশ্ন তোলার সুযোগ আছে। 

তবে সব মিলিয়ে এখনই এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর সময় আসেনি। ডেল্টাক্রনের ঘোষণা দেওয়া বিজ্ঞানী কোস্ত্রিকিস বলছেন, তারা খুব শিগগিরই তাদের তথ্য-উপাত্ত পিয়ার রিভিউয়ের জন্য জমা দেবেন। একইসঙ্গে সারা বিশ্ব থেকে বিজ্ঞানীরা ডেল্টাক্রন নিয়ে যে মতামত দিয়েছেন সেটা তারা গুরুত্বের সঙ্গে দেখছেন।  

এনএফ

Link copied