রাশিয়া সবকিছু ধ্বংস করে দিতে চায় : জেলেনস্কি

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৫ মে ২০২২, ০১:০৩ পিএম


রাশিয়া সবকিছু ধ্বংস করে দিতে চায় : জেলেনস্কি

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি (ফাইল ছবি)

তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে রাশিয়া। এর মধ্যে মঙ্গলবার (২৪ মে) রুশ সেনারা পূর্ব ইউক্রেনে আরও অগ্রসর হয়েছে এবং প্রধান প্রধান শহরগুলোতে আঘাত হানা অব্যাহত রেখেছে বলে জানিয়েছেন ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

তার অভিযোগ, রাশিয়ার সেনারা দেশের পূর্বাঞ্চলীয় ‘ডনবাস অঞ্চলের সবকিছু ধ্বংস করে’ দিতে চায়। বুধবার (২৫ মে) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোরে ইউক্রেনে হামলা শুরু করে রাশিয়ান সৈন্যরা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী স্থল, আকাশ ও সমুদ্রপথে ইউক্রেনে এই হামলা শুরু করে। একসঙ্গে তিন দিক চলা রাশিয়ার সর্বাত্মক এই হামলা দিন দু’য়েক আগে গড়িয়েছে চতুর্থ মাসে।

রাশিয়া অবশ্য তিনমাস ধরে সামরিক অভিযান চালালেও রুশ সেনারা প্রাথমিকভাবে প্রায় পুরো ইউক্রেনীয় ভূখণ্ডে হামলা পরিচালনা করে। তবে পরে সেই অবস্থান থেকে সরে এসে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী মূল মনোযোগ দেয় ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলীয় ডনবাস এলাকায়। মূলত তখন থেকে এই অঞ্চলে ব্যাপক গোলাবর্ষণ করে যাচ্ছে রুশ সেনারা।

আরও স্পষ্ট করে বললে, রুশ-ভাষী মানুষকে রক্ষা এবং রাশিয়াপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের রক্ষার কথা বলে দোনেতস্ক ও লুহানস্ক অঞ্চল নিয়ে গঠিত ডনবাস ভূখণ্ড দখলের চেষ্টা করছে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী। আর এতেই রুশ সেনাদের ব্যাপক গোলাবর্ষণে বিধ্বস্ত হচ্ছে ইউক্রেনের এই শিল্প এলাকা।

এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার রাতে জাতির উদ্দেশে দেওয়া বক্তৃতায় ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ডনবাসের পরিস্থিতিকে ‘অত্যন্ত কঠিন’ হিসেবে অভিহিত করে বলেন,  রাশিয়ার সামরিক বাহিনী সেখানকার সেভেরোদোনেতস্ক এবং অন্যান্য কয়েকটি শহরে ব্যাপক আক্রমণ চালাচ্ছে।

তিনি অভিযোগ করেন, ‘রুশ সামরিক বাহিনী নিজেদের সকল শক্তি দিয়ে ডনবাস অঞ্চলে হামলা পরিচালনা করছে। দখলকারীরা সেখানে সবকিছু ধ্বংস করে দিতে চায়।’

এসময় রুশ আগ্রাসন মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলোর অস্ত্র ও সামরিক সহায়তারও প্রশংসা করেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। তিনি বলেন, ইউক্রেনকে রকেট চালিত গ্রেনেড, ট্যাংক, জাহাজ-বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ও অন্যান্য অস্ত্র সরবরাহ করা আসলে বিশ্বে স্থিতিশীলতা বজায় এবং গুরুতর সংকট সৃষ্টির রুশ পরিকল্পনা প্রতিরোধ করার জন্য সর্বোত্তম বিনিয়োগ।

ইউক্রেনীয় প্রেসিডেন্টের ভাষায়, ‘এই যুদ্ধ যত দীর্ঘ হবে, শুধু ইউক্রেনে নয়, সমগ্র মুক্ত বিশ্বে স্বাধীনতা রক্ষার মূল্য তত বেশি হবে।’

এদিকে ডনবাসের লুহানস্ক অঞ্চলের গভর্নর সার্জি গাইদাই বলেছেন, রাশিয়ার সামরিক বাহিনী তাদের প্রদেশের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরও জোরদার করতে এবং ইউক্রেনের ভেতরে আরও এগিয়ে যাওয়ার প্রয়াসে শিল্প শহর সেভেরোদোনেতস্কে বিমান হামলা, রকেট, আর্টিলারি এবং মর্টার দিয়ে হামলা চালাচ্ছে।

টেলিগ্রামে দেওয়া এক ভিডিওবার্তায় তিনি বলেন, ‘(এখানকার) পরিস্থিতি খুব কঠিন এবং দুর্ভাগ্যবশত এটি কেবল খারাপই হচ্ছে। পরিস্থিতি প্রতিদিনই, এমনকি প্রতি ঘণ্টায়ই আরও খারাপ হচ্ছে। রুশ সেনাবাহিনী সেভেরোদোনেতস্ক শহরকে সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

টিএম

Link copied