ইউরোপজুড়ে মার্কিন সৈন্য বাড়ানোর ঘোষণা বাইডেনের

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৯ জুন ২০২২, ০৮:২৬ পিএম


ইউরোপজুড়ে মার্কিন সৈন্য বাড়ানোর ঘোষণা বাইডেনের

স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে ন্যাটো জোটের শীর্ষ বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন পুরো ইউরোপের স্থল, আকাশ এবং সমুদ্রজুড়ে আমেরিকান সেনা উপস্থিতি বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন ইউরোপের শান্তি ধ্বংস করে দিয়েছেন বলেই আমেরিকার এই সিদ্ধান্ত।

মার্কিন টিভি নেটওয়ার্ক সিএনএন বলছে, পোল্যান্ডে মার্কিন সেনাবাহিনীর ফিফথ কোর সেনাদলের একটি স্থায়ী সদর দপ্তর তৈরি করা হবে। রোমানিয়াতে আরো তিন হাজার সৈন্য মোতায়েন করা হবে। বাল্টিক দেশগুলোতে আমেরিকার সৈন্য সংখ্যা বাড়ানো হবে।

শুধু পূর্ব ইউরোপই নয়, পশ্চিম ইউরোপেও আমেরিকার সামরিক উপস্থিতি বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন বাইডেন। ব্রিটেনে সর্বাধুনিক এফ-৩৫ যুদ্ধ বিমানের আরো দুটো স্কোয়াড্রন মোতায়েন করা হবে। সেইসাথে ইতালি এবং জার্মানির বিমান ও ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা আরো জোরদার করা হবে।

ইউরোপে মার্কিন নৌ-বাহিনীর শক্তি বাড়াতে স্পেনের রোটা ন্যাভাল স্টেশনে আরো দুটি ডেস্ট্রয়ার পাঠানো হবে। ন্যাটো মহাসচিব জেন্স স্টলটেনবার্গের সাথে বুধবার এক বৈঠকের পর বাইডেন বলেন, মিত্রদের সাথে মিলে আমরা নিশ্চিত করবো যে কোনো জায়গায় যে কোনো ধরনের হুমকি মোকাবেলায় ন্যাটো প্রস্তুত।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ন্যাটোর প্রয়োজনীয়তা এবং গুরুত্ব এখন যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি।

তুরস্ক আপত্তি তুলে নেওয়ার পর ফিনল্যান্ড এবং সুইডেনের এই জোটের যোগ দেওয়ার পথে বাধা উঠে যাওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ঠিক এই বিষয়টিই পুতিন কখনই চাননি...কিন্তু ইউরোপের নিরাপত্তার জন্য ঠিক এটাই এখন জরুরি, বলেন বাইডেন।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ন্যাটো জোটের শক্তি বাড়াতে যে পরিকল্পনা করা হচ্ছে- শীতল যুদ্ধ শেষ হওয়ার পর তার নজির আগে আর দেখা যায়নি।

ন্যাটো শীর্ষ বৈঠক শুরুর ঠিক আগে সোমবার জোটের মহাসচিব জেন্স স্টলটেনবার্গ বলেন, যুদ্ধের জন্য সর্বদা প্রস্তুত এমন সৈন্য সংখ্যা বর্তমানের ৪০ হাজার থেকে প্রায় দশগুণ বাড়িয়ে তিন লক্ষাধিকে নেওয়া হবে। নতুন এই কৌশলগত পরিকল্পনা মাদ্রিদের এই শীর্ষ সম্মেলনে অনুমোদিত হতে পারে।

তিনি বলেন, ন্যাটোর এই র‍্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্স হচ্ছে স্থল, নৌ ও বিমান সেনা ও সরঞ্জামের সমন্বয়ে তৈরি করা একটি বাহিনী - কোনও আক্রমণ হলে যাদেরকে দ্রুতগতিতে মোতায়েন করা যাবে। ২০১৪ সালের আগে এ বাহিনীর সৈন্য সংখ্যা ছিল ১৩ হাজার।  আর এখন তা বেড়ে ৪০ হাজার হয়েছে।

এসএস

Link copied