বিশ্বকাপ পোস্টে পতাকার বিকৃত ছবি, যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চটেছে ইরান

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৮ নভেম্বর ২০২২, ০৩:২১ পিএম


বিশ্বকাপ পোস্টে পতাকার বিকৃত ছবি, যুক্তরাষ্ট্রের ওপর চটেছে ইরান

কাতার বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে মঙ্গলবার মুখোমুখি হবে ইরান ও যুক্তরাষ্ট্র। দুই চির বৈরি দেশের ফুটবল দল মাঠে নামার আগেই ছড়িয়েছে উত্তেজনা। এ উত্তেজনার উৎপত্তি ইরানের পতাকার ছবি প্রকাশ নিয়ে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি সোমবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ইরান-যুক্তরাষ্ট্র ম্যাচ নিয়ে রোববার ফেসবুক, টুইটার ও ইনস্টাগ্রামে একটি পোস্ট করে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল ফেডারেশন। কিন্তু সেই পোস্টে তারা ইরানের আসল পতাকার বদলে— ইরানের পতাকার মাঝে থাকা প্রতীকটি বাদ দিয়ে বিকৃত ছবি প্রকাশ করে। এ নিয়ে বেজায় ক্ষিপ্ত হয়েছে তেহরান। তারা ফিফার কাছে সরাসরি নালিশ জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল ফেডারেশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ইরানে যেসব নারী হিজাববিরোধী বিক্ষোভ করছেন তাদের প্রতি সমর্থন জানাতে ইরানের পতাকা থেকে ইসলামিক প্রতীক বাদ দিয়েছিল তারা।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম ইরনা তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ওই প্রতীকটিতে আসলে ‘আল্লাহ’ শব্দটি লেখা আছে। যুক্তরাষ্ট্রের তীব্র সমালোচনা করে সংবাদমাধ্যমটি লিখেছে, অপেশাদারিত্বের অংশ হিসেবে, যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল ফেডারেশনের ইনস্টাগ্রাম পেজে আল্লাহ শব্দ বাদ দিয়ে ইরানের পতাকা প্রদর্শন করা হয়েছে।’

ইরনার প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, ইরানিয়ান ফুটবল ফেডারেশন ফিফার কাছে ইমেইল পাঠিয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্রকে কঠোর সতর্কতা বার্তা দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল ফেডারেশনের একজন মুখপাত্র অবশ্য জানিয়েছেন, তারা ওই পোস্ট মুছে দিয়েছেন এবং ইরানের সঠিক পতাকা দিয়ে পরবর্তীতে পোস্ট করা হয়েছে। তবে তিনি জানিয়েছেন, ‘ইরানের নারী আন্দোলনকারীদের পাশে থাকবে যুক্তরাষ্ট্র।’

এদিকে ইরানের আধাসরকারি বার্তাসংস্থা তাসনিম নিউজ জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল ফেডারেশন যে কাজ করেছে সেটি ফিফার নিয়ম অনুযায়ী গুরুতর অপরাধ। এ অপরাধের শাস্তি হিসেবে একটি দল বা ব্যক্তিকে সর্বনিম্ন দশ ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ করার বিধান রয়েছে।

ইরান এখন যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্বকাপ থেকে বহিষ্কার করার দাবি জানাচ্ছে। যদিও ফিফা এমন কঠোর সিদ্ধান্ত নেবে না বলেই মনে হচ্ছে।

ইরানে বর্তমানে যেসব বিক্ষোভ চলছে এরজন্য যুক্তরাষ্ট্রকে দায়ী করে থাকে তেহরান। তাদের দাবি, ওয়াশিংটনের মদদে তাদের দেশে এমন অস্থিরতা চলছে।

সূত্র: বিবিসি

এমটিআই

Link copied