মানব মস্তিষ্কে যন্ত্র বসালে কী হয়, পরীক্ষা করতে চান মাস্ক

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৬:১৩ পিএম


মানব মস্তিষ্কে যন্ত্র বসালে কী হয়, পরীক্ষা করতে চান মাস্ক

ইলন মাস্ক, ছবি : এনডিটিভি

বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক ঘোষণা দিয়েছেন, তার মালিকানাধীন কোম্পানি নিউরালিংক বিশেষ এক ধরণের যন্ত্র (চিপ) তৈরি করেছে। এই চিপ মস্তিষ্কে বসালে মানুষ কম্পিউটারের সঙ্গে সরাসরি সংযোগ স্থাপন করতে পারবে।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে এক কোম্পানি প্রেজেন্টেশন অনুষ্ঠানে মাস্ক এই ঘোষণা দেন। যুক্তরাজ্যের খাদ্য ও ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা (এফডিএ) অনুমোদন দিলে দ্রুত স্বেচ্ছাসেবীদের নিয়ে ট্রায়াল পরীক্ষা শুরু করবেন বলেও জানান তিনি।

বৈদ্যুতিক গাড়ি প্রস্তুতাকারী প্রতিষ্ঠান টেসলা, মহাকাশযানের যন্ত্রাংশ প্রস্তুতকারী কোম্পানি স্পেসএক্স এবং সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারের মালিক ইলন মাস্কের নতুন স্টার্টআপ প্রতিষ্ঠানের নাম নিউরালিংক। চিপটির নামও করা হয়েছে প্রতিষ্ঠানের নামেই।

প্রেজেন্টেশন অনুষ্ঠানে মাস্ক বলেন, ‘মানুষের মস্তিষ্কে বিশেষ প্রযুক্তি বসানোর আগে আমরা কঠোর পরিশ্রম করছি। মানুষের মস্তিষ্কে বসানোর আগে এ বিষয়ে যথেষ্ট সতর্কতা ও নিশ্চিত হয়ে তবেই সামনে এগোনো হবে।’

ট্রায়ালের অনুমতি চেয়ে ইতোমধ্যে এফডিএ বরাবর আবেদন করা হয়েছে উল্লেখ করে মাস্ক বলেন, ‘এফডিএর কাছে আমরা এই গবেষণা সংক্রান্ত অধিকাংশ নথি জমা দিয়েছি। আশা করা যাচ্ছে, আগামী ছয় মাসের মধ্যে মানুষের মস্তিষ্কে প্রথম নিউরালিংক বসানো যাবে।’

ঠিক কী কারণে এমন একটি প্রকল্প হাতে নিলেন— ব্যাখ্যা করতে গিয়ে মাস্ক বলেন, ‘যারা শারীরিকভাবে চলাচল কিংবা হাত-পায়ের পেশি সঞ্চালনে অক্ষম, মূলত তাদের সমস্যা বিবেচনা করেই এ প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। তারাই আমাদের প্রাথমিক লক্ষ্য।’

‘যদি তারা নিজেদের মস্তিষ্কে নিউরালিংক স্থাপণ করেন, সেক্ষেত্রে এটি ব্যবহার করে তারা কেবল কম্পিউটার নয়, মোবাইল ফোনেও অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন।’

‘শুনতে হয়তো অলৌকিক মনে হবে, কিন্তু স্পাইনাল কর্ডের (মেরুদণ্ডের সঙ্গে মস্তিষ্কের সংযোগকারী বিশেষ স্নায়ু) সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে— এমন লোকজনও নিউরালিংকের মাধ্যমে উপকৃত হবেন। এ কারণে স্বেচ্ছাসেবীদের মধ্যে আমরা তাদেরকেই প্রাধান্য দেবো, যারা হাত-পায়ের পেশি সঞ্চালনে অক্ষম।’

ট্রায়াল শুরু হলে নিজের মস্তিষ্কেও একটি নিউরালিংক চিপ বসানোর পরিকল্পনা তার আছে বলে জানিয়েছেন এই ধনকুবের।

সূত্র : এএফপি

এসএমডব্লিউ

Link copied