করোনা: দ্বিতীয় ঢেউয়ে কাতারে বিধিনিষেধ কঠোর

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৮ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৭ পিএম


করোনা: দ্বিতীয় ঢেউয়ে কাতারে বিধিনিষেধ কঠোর

কাতারে বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে মহামারি করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। শুরু হয়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। এহেন পরিস্থিতিতে দেশটির সরকার ফের কঠোর কোভিড বিধিনিষেধের ঘোষণা দিয়েছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার বৃহস্পতিবারের প্রতিবেদনে এ খবর জানানো হয়েছে।

করোনার দ্বিতীয় দফা প্রকোপ সামাল দিতে এখন হিমশিম খাওয়া কাতারের মন্ত্রিসভা বুধবার বিবৃতি দিয়ে ফের এমন বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দেয়। আগামীকাল শুক্রবার থেকে নতুন এসব বিধিনিষেধ কার্যকর হবে। 

আল-জাজিরা জানিয়েছে, বুধবার অর্থাৎ গত ২৪ ঘণ্টায় কাতারে নতুন করে ৯৪০ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে মহামারি শুরুর পর দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা এক লাখ ৮৬ হাজার ছাড়িয়ে গেছে।   

কাতারের হামাদ মেডিকেল করপোরেশনের উপ-প্রধান চিকিৎসক আব্দুল লতিফ আল খালের মতে, ফের করোনার এই বিস্তারের নেপথ্যে রয়েছে যুক্তরাজ্য ও দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনার নতুন ধরন।

জিমনেশিয়াম, সুইমিং পুল, ওয়াটার পার্ক ও স্পা বন্ধ ছাড়াও নতুন এই কঠোর বিধিনিষেধের আওতায় জাদুঘর, সিনেমা হল, লাইব্রেরি ও নার্সারিগুলো বন্ধ করে দেওয়ার নির্দেশনা আগামীকাল শুক্রবার থেকে কার্যকর হবে। এছাড়া ক্যাফে ও রেস্তোরাঁগুলো এখন থেকে ভেতরে কিংবা খোলা স্থানে খাবার পরিবেশন করতে পারবে না।   

নতুন বিধিনিষেধের আওতায় পার্ক ও সমুদ্র সৈকতে জনসমাগমের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। তবে দৌঁড়ানো কিংবা সাইক্লিংয়ের মতো ব্যক্তিগত খেলাধুলার মতো কার্যকমগুলো চালিয়ে যেতে পারবেন মানুষজন।   

বাড়িতে এবং আবদ্ধ কোনো স্থানে সামাজিক জনসমাগমেও দেওয়া হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। এছাড়া খোলা আকাশের নিচে পাঁচজন মানুষে একত্রিত হতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে তাদের টিকা নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হতে হবে। 

নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী অর্ধেকের বেশি কর্মী নিয়ে সরকারি ও বেসরকারি অফিসগুলো তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পারবে না। আর বাকি কর্মীরা ঘরে বসেই তাদের অফিসে কাজ (হোম অফিস) করবেন।  

তবে প্রাত্যহিক ও শুক্রবারে নামাজ চালু থাকবে মসজিদে। তবে তারাবিহ নামাজ মসজিদে পড়া যাবে না। আসন্ন রমজানে মানুষজনকে ঘরেই তারাবিহর নামাজ আদায় করার জন্য মুসল্লিদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। 

Qatar

দ্বিতীয় ঢেউ

বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে আল খাল বলেন, কাতার এখন করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মাঝপথে রয়েছে। বিগত দুই সপ্তাহে দেশটিতে সংক্রমণ বৃদ্ধির সঙ্গে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতাল ও নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ভর্তিও বেড়েছে।   

কাতারের এক শীর্ষস্থানী কর্মকর্তা নতুন করে মহামারি করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে পুরো দেশব্যাপী লকডাউন করার আহ্বান জানানোর পর সরকারের পক্ষ থেকে বিধিনিষেধ কঠোর করার ঘোষণা দেওয়া হলো। 

উল্লেখ্য, শিক্ষা, অবসরযাপন, ব্যবসায়িক কার্যক্রমের ওপর নানা ধারনের বিধিনিষেধ আরোপ করে রাখার পরও দৈনিক ভিত্তিতে মধ্যপ্রাচ্যের ছোট দেশ কাতারে মহামারি এই ভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ প্রত্যক্ষ করা যাচ্ছে। 

গত ফেব্রুয়ারি কর্তৃপক্ষ নতুন করে শুরু হওয়া ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ ঠেকানোর লক্ষ্যে ৩২ দফা নির্দেশনা জারি করেছিল। কিন্ত এটা সত্ত্বেও দেশটিতে ভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণে সরকারের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে।

এএস

Link copied