আজকের সর্বশেষ

১ম বিদেশ সফরে ইন্দোনেশিয়া যাচ্ছেন মিয়ানমারের জান্তা প্রধান

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৭ এপ্রিল ২০২১, ১৭:৪৯

১ম বিদেশ সফরে ইন্দোনেশিয়া যাচ্ছেন মিয়ানমারের জান্তা প্রধান

আগামী সপ্তাহে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট আসিয়ানের নেতাদের এক সম্মেলনে যোগ দিচ্ছেন মিয়ানমারের সামরিক জান্তা প্রধান মিন অং হ্লেইং। বিশেষ এই সম্মেলনে মিয়ানমারের জান্তার যোগ দেওয়ার তথ্য শনিবার থাইল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিশ্চিত করেছে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত অং সান সু চি নেতৃত্বাধীন সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর প্রথমবারের মতো বিদেশ সফরে যাচ্ছেন অভ্যুত্থানের হোতা দেশটির সেনাপ্রধান মিং অং হ্লেইং। অভ্যুত্থানের পর থেকে মিয়ানমার অস্থিতিশীল রয়েছে— দেশটিতে গণতন্ত্র ফেরানোর দাবিতে প্রত্যেকদিন লাখ লাখ মানুষ অভ্যুত্থানবিরোধী বিক্ষোভ চালিয়ে আসছেন।

প্রাণবিনাশী বলপ্রয়োগ করে মিয়ানমারে বিক্ষোভ দমনের চেষ্টা করছে জান্তা। বিক্ষোভে নিরাপত্তাবাহিনীর সহিংসতায় ৭২০ জনের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে। স্থানীয় একটি পর্যবেক্ষক সংস্থা বলেছে, অভ্যুত্থানের পর থেকে এখন পর্যন্ত মিয়ানমারে ৩ হাজার ১০০ জনের বেশি মানবাধিকার কর্মী, সাংবাদিক এবং ভিন্নমতাবলম্বীকে আটক করেছে জান্তা সরকার। 

নিরস্ত্র ব্সোমরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে প্রাণঘাতী অস্ত্র ব্যবহার ও বলপ্রয়োগ করায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় মিয়ানমারের সামরিক সরকারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে আসছে। পশ্চিমা বেশ কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যে মিয়ানমারের জান্তা নেতা ও তাদের পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

কিন্তু আঞ্চলিক নেতারা মিয়ানমারের জান্তা নেতাদের সঙ্গে যোড়াযোগের চেষ্টা করছেন। শনিবার থাইল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় মিয়ানমার পরিস্থিতি নিয়ে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় আগামী সপ্তাহের বিশেষ সম্মেলনে মিন অং হ্লেইংয়ের উপস্থিতির তথ্য নিশ্চিত করেছে।

থাইল্যান্ডের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র টনি স্যাংগ্রাট বলেছেন, মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং হ্লেইংসহ আরো বেশ কয়েকজন নেতা জাকার্তা সম্মেলনে অংশগ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আগামী ২৪ এপ্রিল দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশগুলোর জোট আসিয়ানের বিশেষ ওই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।  

বন্দি মুক্তি

জাকার্তায় মিয়ানমারের জান্তা প্রধানের অংশগ্রহণের খবরটি এমন একদিনে এলো; যখন একইদিনে দেশটির ২৩ হাজারের বেশি  কারাবন্দিকে মুক্তি দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী বৌদ্ধ নববর্ষ উপলক্ষে মিয়ানমারে প্রত্যেক বছর হাজার হাজার বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হয়। 

প্রত্যেক বছর নববর্ষের দিনে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা রাস্তায় আনন্দ-উল্লাস ও জলকেলিতে মেতে উঠলেও এবার তা হবে কি না সেটি নিয়ে অনিশ্চয়তা রয়েছে। কারণ দেশটিতে সামরিক জান্তা সরকার ক্ষমতায় আসায় প্রায় প্রত্যেকদিন লাখ লাখ মানুষ বিক্ষোভ-প্রতিবাদ করছেন।

দেশটির এক কারা কর্মকর্তা ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপিকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেছেন, দেশজুড়েই ২৩ হাজারের বেশি কারাবন্দিকে মুক্তি দেওয়ার কাজ শিগগিরই শুরু হবে। তিনি বলেছেন, আমরা বাণিজ্যিক রাজধানী ইয়াঙ্গুনের ইনসেইন কারাগার থেকে ৮ শতাধিক বন্দিকে মুক্তি দেবো।

কারাবন্দিদের মুক্তি নিয়েও দেশটিতে অনেকে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কারণ বিভিন্ন অপরাধে অভিযুক্ত বন্দিদের মুক্তি দেশটির অনেক জাতিগত বিদ্রোহী গোষ্ঠী স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে পারে না।

গত বুধবার দেশটির একটি বিদ্রোহী গোষ্ঠী সরকারি ক্ষমায় মুক্তি পাওয়া এক ব্যক্তিকে হত্যা করে। ওই ব্যক্তির বিরুদ্ধে পাঁচ বছরের এক কিশোরীকে ধর্ষণ এবং হত্যার অভিযোগ ছিল।

এসএস

Link copied