করোনাভাইরাস পরিস্থিতি

ভারতে মৃত্যু দুইশোর নিচে, ২০১ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন সংক্রমণ

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৭ এএম


ভারতে মৃত্যু দুইশোর নিচে, ২০১ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন সংক্রমণ

ভারতে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির নাটকীয় উন্নতি হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশটিতে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা নেমেছে দুইশোর নিচে। একইসঙ্গে ২০১ দিন পর নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা নেমে এসেছে ২০ হাজারের নিচে। গত এক দিনে ভারতে সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও কমেছে। সুস্থতার হার বৃদ্ধির পাশাপাশি সংক্রমণের হার নেমেছে দেড় শতাংশের নিচে।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১৮ হাজার ৭৯৫ জন মানুষ। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় দেশটিতে নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা কমেছে ৭ হাজারের বেশি। সর্বশেষ এই সংখ্যাসহ মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ৩৬ লাখ ৯৭ হাজার ৫৮১ জনে।

অন্যদিকে মঙ্গলবার ভারতে প্রাণহানির সংখ্যা নেমে এসেছে দুইশোর নিচে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছেন ১৭৯ জন। অর্থাৎ গত এক দিনে প্রাণহানির সংখ্যা কমেছে ৯৭ জন। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৪ লাখ ৪৭ হাজার ৩৭৩ জন।

এদিকে সংক্রমণ কমে আসার সঙ্গে সঙ্গে ভারতে বেড়েছে সুস্থতার সংখ্যাও। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হওয়া মানুষের তুলনায় সুস্থ হয়েছেন বেশি মানুষ। ফলে মঙ্গলবার দেশটিতে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা আরও কমেছে।

গত একদিনে ভারতে সুস্থ হয়েছেন বা হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ২৬ হাজার ৩০ জন মানুষ। অন্যদিকে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ হাজারের বেশি। ফলে দেশটিতে মোট সক্রিয় রোগীর সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ২ লাখ ৯২ হাজার ২০৬ জনে। ১৯২ দিন বা ছয় মাসেরও বেশি সময়ের মধ্যে যা সর্বনিম্ন।

ভারতের মোট শনাক্ত রোগীর শূন্য দশমিক ৮৭ শতাংশ (০.৮৭%) বর্তমানে সক্রিয় রোগী। সোমবারের তুলনায় মঙ্গলবার এই হার কমেছে। এদিকে ভারতে সুস্থতার হারও বেড়েছে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৮১ শতাংশ। ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে যা সর্বোচ্চ।

অন্যদিকে, ভারতে দৈনিক সংক্রমণের হার নেমে এসেছে দেড় শতাংশের নিচে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে দৈনিক সংক্রমণের হার ১ দশমিক ৪২ শতাংশ। গত ২৯ দিন ধরে দেশটিতে এই হার তিন শতাংশের নিচেই রয়েছে।

টিএম

Link copied