মার্কিন সিনাগগে হামলাকারী ব্রিটিশ নাগরিক, যুক্তরাজ্যে আটক ২

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১১:১৩ এএম


মার্কিন সিনাগগে হামলাকারী ব্রিটিশ নাগরিক, যুক্তরাজ্যে আটক ২

যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে ইহুদিদের উপাসনালয় সিনাগগে হামলা ও চারজনকে জিম্মিকারী অভিযুক্ত ব্যক্তি যুক্তরাজ্যের নাগরিক। রোববার ওই ঘটনার একপর্যায়ে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে তিনি নিহত হন। ইহুদিদের উপাসনালয়ে এই ঘটনাকে ‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড’ বলে আখ্যায়িত করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

এদিকে এই ঘটনায় যুক্তরাজ্যে দু’জনকে আটক করেছে দেশটির পুলিশ। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের কোলেভিল শহরে ইহুদিদের উপাসনালয় সিনাগগে হামলা ও চারজনকে জিম্মি করার ঘটনায় অভিযুক্ত ব্রিটিশ নাগরিকের নাম মালিক ফয়সাল আকরাম বলে জানিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই)। জিম্মি চারজনের মধ্যে চার্লি সিট্রন-ওয়াকার নামে ওই সিনাগগের ইহুদি পণ্ডিতও ছিলেন।

শেষ পর্যন্ত টানা ১১ ঘণ্টার প্রচেষ্টায় নিরাপত্তারক্ষীরা অক্ষত অবস্থায় জিম্মিদের উদ্ধার করে। এসময় নিরাপত্তারক্ষীদের গুলিতে ওই ব্রিটিশ নাগরিক মালিক ফয়সাল আকরাম নিহত হয়। এফবিআই জানিয়েছে, নিহত ৪৪ বছর বয়সী ব্রিটিশ নাগরিক ফয়সাল আকরাম দুই সপ্তাহ আগে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশ করেছিলেন।

জিম্মিদশার ব্যাপারে ইহুদি পণ্ডিত চার্লি সিট্রন-ওয়াকার জানান, ‘এটি যে ভীতিকর অভিজ্ঞতা ছিল তা নিয়ে কোনো প্রশ্ন নেই। আমরা ভালো আছি এবং আমরা (ট্রমা) কাটিয়ে উঠবো।’

এদিকে এক বিবৃতিতে এফবিআই জানিয়েছে, কোলেভিল শহরের ওই সিনাগগে হামলায় ফয়সাল আকরাম ছাড়া আরও অন্য কেউ জড়িত রয়েছে এমন কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। এছাড়া নিহত আকরামের বিষয়ে বা তার হামলার উদ্দেশ সম্পর্কে আর কোনো তথ্য দেয়নি সংস্থাটি।

অন্যদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এই ঘটনাকে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বলে আখ্যায়িত করেছেন। হামলার উদ্দেশ সম্পর্কে তিনি স্পষ্ট করে কিছু না বললেও যে ইঙ্গিত দিয়েছেন তাতে মার্কিন গণমাধ্যমের তথ্যই সঠিক বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সিনাগগে হামলার পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম জানিয়েছিল যে, মার্কিন কারাগারে বন্দি থাকা পাকিস্তানি নিউরোসায়েন্টিস্ট আফিয়া সিদ্দিকীর মুক্তির দাবিতেই চারজনকে জিম্মি করেছেন হামলাকারী। পাকিস্তানি ওই বিজ্ঞানী আফগানিস্তানে মার্কিন সামরিক কর্মকর্তাদের হত্যার চেষ্টা করেছিলেন বলে অভিযোগ ওয়াশিংটনের।

রোববার ফিলাডেলফিয়ায় সাংবাদিকদের জো বাইডেন বলেন, এটি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। এটি এমন একজনের সঙ্গে সম্পর্কিত যিনি ১৫ বছর আগে আটক হয়েছেন এবং ১০ বছর ধরে কারাগারে রয়েছেন।

এদিকে যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারের পুলিশ জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের তদন্তে সহায়তা করতে কাজ করছেন তারা। সিনাগগে হামলার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃত দু’জনই টিনএজার।

হামলার পর প্রথমদিকে এবিসির রিপোর্টে জিম্মিকারী ব্যক্তিকে আফিয়া সিদ্দিকীর ভাই বলে উল্লেখ করা হয়েছিল। পরে তারা পরিষ্কার করে বিষয়টি। বলা হয়, আফিয়ার ভাই বসবাস করেন হাউজটনে। হামলাকারী ব্যক্তি আফিয়ার ভই নন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের কাছে একটি বিবৃতি দিয়েছেন পাকিস্তানি বিজ্ঞানী আফিয়া সিদ্দিকীর আইনজীবী। তাতে তিনি দাবি করেছেন, এ জিম্মি ঘটনার সঙ্গে আফিয়া মোটেও জড়িত নন। জিম্মিকারী ব্যক্তি তার ভাইও নন। এ ধরনের কর্মকাণ্ডের নিন্দা জানিয়েছেন আফিয়া।

টিএম

Link copied