বাচ্চাদের তাড়াতে শূন্যে গুলি, মন্ত্রীর ছেলেকে গ্রামবাসীর পিটুনি

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৪ জানুয়ারি ২০২২, ০৭:৩৯ এএম


বাচ্চাদের তাড়াতে শূন্যে গুলি, মন্ত্রীর ছেলেকে গ্রামবাসীর পিটুনি

গ্রামের বাচ্চারা একটি বাগানে ক্রিকেট খেলছিল। সে খবর পেয়ে নিজেদের বাগান থেকে বাচ্চাদের তাড়াতে শূন্যে গুলি চালান বিহারের পর্যটনমন্ত্রীর ছেলে। যার কারণে হুড়োহুড়িতে পদদলিত হয়ে এক শিশুসহ ছয় জন আহত হয়েছেন।

বিহারের পশ্চিম চম্পারণ জেলায় এ অভিযোগে রোববার ওই মন্ত্রীর ছেলেকে ধরে মারধর করেন গ্রামবাসীরা। মন্ত্রীর গাড়ি ভাঙচুরও করা হয়। যদিও গুলি চালানোর কথা অস্বীকার করেছেন বিহারের ওই বিজেপি মন্ত্রী। এ ঘটনায় সরব হয়েছেন ভারতের বিরোধী দলনেতারা। তাদের অভিযোগ, বিহারের আইনপ্রণেতারাই আইন ভঙ্গ করছেন।

পুরো ঘটনাটি নেট মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তাতে দেখা গেছে, ক্যামেরার সামনেই মন্ত্রীর ছেলেকে ধরে পেটাচ্ছেন অনেকে।

জানা গেছে, ঘটনার সূত্রপাত হরদিয়া গ্রামে বিহারের পর্যটনমন্ত্রী নারায়ণ প্রসাদের খামারবাড়িতে। অভিযোগ, ওই গ্রামের বাচ্চারা খামারবাড়ির বাগানে ক্রিকেট খেলছে বলে খবর পেয়ে বন্দুক, পিস্তলসহ লোকজন নিয়ে সেখানে পৌঁছান তার ছেলে বাবলু কুমার। এরপর বাচ্চাদের ভয় দেখিয়ে সেখান থেকে তাড়াতে পিস্তল থেকে শূন্যে গুলি চালান। গুলি চালানোর কারণে বাচ্চাদের মধ্যে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। তাতে পদদলিত হয়ে আহত হন এক শিশুসহ কয়েকজন গ্রামবাসী। ঘটনার সময় বেশ কয়েকজনকে মারধর করা হয় বলেও বাবলুর বিরুদ্ধে অভিযোগ গ্রামবাসীর। খবর পেয়ে ছুটে আসেন স্থানীয়রা। তারা অভিযোগ করেন, এরপর বাবলুর আগ্নেয়াস্ত্র কেড়ে নিয়ে তাকে মারধর করেন তারা। মন্ত্রীর নাম লেখা নম্বর প্লেট খুলে নিয়ে তার গাড়িও ভাঙচুর করা হয়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে গ্রামবাসীদের হাত থেকে বাবলুকে উদ্ধার করে পুলিশ। পশ্চিম চম্পারণ জেলার পুলিশ সুপার উপেন্দ্র বর্মা জানান, গ্রামবাসীদের পাশাপাশি আহত হয়েছেন মন্ত্রীর ছেলেও। তার আগ্নেয়াস্ত্র বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করানো ছাড়া ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় গুলি চালানোর অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন মন্ত্রী নারায়ণ প্রসাদ। তার দাবি, গ্রামবাসী পরিবারের লোকজনদের মারধর করায় বন্দুক-পিস্তল নিয়ে সেখানে গিয়েছিল আমার ছেলে। তার বন্দুক-পিস্তলের লাইসেন্সও রয়েছে। আমার ছেলের ওপর পাথর দিয়ে হামলা করা হয়েছে। আমার গাড়িতেও ভাঙচুর চালিয়েছে গ্রামবাসী। গুলি চালানোর অভিযোগ ভিত্তিহীন। আমার বদনাম করার জন্য রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।

এ ঘটনায় নীতীশ কুমার সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছে বিরোধীরা। রাষ্ট্রীয় জনতা দল (আরজেডি)-এর নেতা শক্তি সিংহ যাদবের দাবি, বিহারে আইনশৃঙ্খলা বলে কিছু নেই। এখানে আইনশৃঙ্খলা বলবৎ কে করবে? আইনপ্রণেতারাই তো নিয়মভঙ্গ করছেন। বাগানে ক্রিকেট খেলার জন্য বাচ্চাদের ওপর মন্ত্রীর ছেলের হামলা করার অধিকার আছে কি?

এসএসএইচ

Link copied