ক্যামেরুনে নাইটক্লাবে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ১৬

Dhaka Post Desk

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

২৪ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:২০ এএম


ক্যামেরুনে নাইটক্লাবে ভয়াবহ আগুন, নিহত অন্তত ১৬

মধ্য আফ্রিকার দেশ ক্যামেরুনে একটি নাইটক্লাবে ভয়াবহ আগুনে কমপক্ষে ১৬ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও বেশ কয়েকজন। দেশটির রাজধানী ইয়াওউন্ডের একটি জনপ্রিয় নাইটক্লাবে আগুন লেগে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে।

আফ্রিকার এই দেশটির সরকারের বরাত দিয়ে রোববার (২৩ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

ক্যামেরুনের প্রশাসন জানিয়েছে, নাইটক্লাবের মধ্যে ব্যবহৃত আগুন থেকে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে এবং আগুনের ঘটনা থেকে সৃষ্ট একটি বিস্ফোরণে প্রাণহানির এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় আরও অন্তত আটজন আহত হয়েছেন।

সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ক্যামেরুনে বর্তমানে আফ্রিকা কাপ অব নেশনস ফুটবল টুর্নামেন্ট চলছে। এ উপলক্ষে হাজার হাজার ফুটবল অনুরাগী দেশটির রাজধানী ইয়াওউন্ডে শহরে অবস্থান করছেন। এর মধ্যেই ইয়াওউন্ডের জনপ্রিয় নাইটক্লাব লিভস’এ ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটায় সরকার সবাইকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছে। একইসঙ্গে নিহতদের নাম ও জাতীয়তা খুঁজে বের করার জন্য একটি তদন্ত শুরু করেছে দেশটির সরকার।

Dhaka Post

অগ্নিকাণ্ডের পর রোববার ক্যামেরুনের সরকারি কর্মকর্তাসহ শত শত মানুষ ইয়াওউন্ডের দুর্ঘটনাস্থল বাস্তোসে উপস্থিত হন। পরে উদ্ধারকর্মীরা ওই এলাকায় তিনটি অগ্নিদগ্ধ ভবনে হতাহতদের খোঁজে অনুসন্ধান চালায়।

আহতদের সন্ধানে উদ্ধারকারীদের সহায়তাকারী বেসামরিক নাগরিকদের মধ্যে ২৭ বছর বয়সী গুস্তাভ লেমেলুও ছিলেন। তিনি বলেছেন, অগ্নিকাণ্ড ছড়িয়ে পড়ার পর স্থানীয় বেসামরিক মানুষ এবং ক্যামেরুনের ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা অন্তত ৪০ জনকে উদ্ধার করে।

তিনি বলেন, আগুনে দগ্ধ হয়ে হতাহতদের নাম ও জাতীয়তা জানা বেশ কঠিন। কারণ লিভস নাইটক্লাব-এ প্রবেশের জন্য কাউকে কোনো পরিচয়পত্র দেখাতে হয় না। হতাহতদের মধ্যে চলমান আফ্রিকান কাপ অব নেশনসের জন্য ক্যামেরুনে আসা মানুষও রয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

দুর্ঘটনার পর এক বিবৃতিতে ক্যামেরুনের সরকার জানিয়েছে, নাইটক্লাবে দুর্ঘটনাজনিত আগুন পাশের একটি রান্নার গ্যাসের দোকানে ছড়িয়ে পড়ে। সেখান থাকা ছয়টি গ্যাস ক্যানিস্টারের বিস্ফোরণে আশপাশে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

ক্যামেরুনের যোগাযোগমন্ত্রী রেনে ইমানুয়েল সাদি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, অগ্নিকাণ্ডের পর তাৎক্ষণিকভাবে নিহত ও আহতদের নাম ও জাতীয়তা সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যায়নি। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলেও আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

টিএম

Link copied