‘বেশির ভাগ গল্পই সাংবাদিকের দিনযাপনের আলেখ্য’

Dhaka Post Desk

ঢাকা পোস্ট ডেস্ক

০৩ আগস্ট ২০২২, ০৯:২৩ পিএম


‘বেশির ভাগ গল্পই সাংবাদিকের দিনযাপনের আলেখ্য’

গল্পকার-কবি ও সাংবাদিক হোসেন শহীদ মজনুর গল্পগ্রন্থ ‘জুলাইয়ের প্রেমহীন দিনগুলো’ এখন বাজারে। বইটি প্রকাশ করেছে স্বনামধন্য প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান ভাষাচিত্র।

বইটির ফ্ল্যাপে দৈনিক যুগান্তরের সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম লিখেছেন- ‘দীর্ঘদিন পত্রিকা সম্পাদনায় জড়িত থেকে আমি লক্ষ্য করেছি আমাদের দেশে তরুণ যারা লেখালেখিতে আসেন, তারা গদ্য লেখার পরিশ্রমে পরাঙ্মুখ। গদ্যে অনীহা থেকে, অনাগ্রহ থেকে কিংবা অপছন্দ থেকে বোধকরি এমনটি হচ্ছে।

একজন লেখক কোন মাধ্যম বেছে নেবেন সেটা তার অন্তর্নিদেশেরও বিষয় বৈকি। তরুণ সাংবাদিক হোসেন শহীদ মজনু কয়েকটি গল্প নিয়ে যে গল্পের বইটি বের করতে যাচ্ছেন তা আমাকে আশাবাদী করেছে। আমি তার গল্পগুলো পড়েছি- তার গদ্য চলিষ্ণু, পাঠককে টেনে নিয়ে যাবে। গল্পগুলো ছোটগল্প চরিত্রের তবে আমি একে মিনি গল্প বলে বোধ করেছি যদিও মিনি গল্প, অনুগল্পের চেয়েও পরিসরে অনেক ছোট হয়- একটা পোস্টকার্ডে এটে যায়।

মিনি গল্পের কথাটা উল্লেখ করলাম এ জন্য যে, এ গ্রন্থের গল্পগুলোর চরিত্র পাঠক অনুধাবন করতে পারবেন। গল্পগুলোর বেশির ভাগই তরুণ সাংবাদিকের দিনযাপনের আলেখ্য- সেটা এ বইয়ের আরেকটি উল্লেখ করার মতো বৈশিষ্ট্য। তরুণ এ সহকর্মীর লেখা গল্পগুলো আমার ভালো লেগেছে। বর্তমান সময়ের পাঠক যদি পছন্দ করেন তাহলেই সেটা লেখকের সার্থকতা বলে বিবেচিত হবে। হোসেন শহীদ মজনুর গদ্য লেখার সাহসকে স্বাগত জানাই। আশা করি, তার গল্প পাঠকের ভালো লাগবে।’

হোসেন শহীদ মজনুর পরিচয়

লেখক হোসেন শহীদ মজনুর প্রধান পরিচয়-তিনি সাংবাদিক। বর্তমানে দৈনিক যুগান্তরে বার্তা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন। ১৯৯২ সালে এইচএসসিতে পড়াকালীন বাংলাদেশে সাংবাদিকতার অন্যতম পথিকৃৎ; বাম রাজনীতিক কমরেড নির্মল সেনের সংস্পর্শে আসেন। তখনই তার সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি।

১৯৯৬ সালে জন্মস্থান কুষ্টিয়ার দৌলতপুর ছেড়ে ঢাকায় আসেন। সাংবাদিক-লেখক বন্ধু কাজল রশীদ শাহীনের অনুপ্রেরণায় ওই সময় দৈনিক রূপালীতে প্রতিবেদক হিসেবে সাংবাদিকতা শুরু। এ সময় তিনি ঢাকা কলেজে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে এমএ’র ছাত্র। ২০০৪ সালে অভিনেতা-নাট্যপরিচালক নুরুল আলম মিল্কীর অনুপ্রেরণায় তৌকীর আহমেদের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘নক্ষত্র’ চলচ্চিত্রের যুক্ত হন।

সাংবাদিকতায় ছেদ পড়ে। ওই বছরই জুনে আমজাদ হোসেনের জনপ্রিয় উপন্যাস ‘সময়-অসময়’ অবলম্বনে ‘জয়যাত্রা’ চলচ্চিত্র পরিচালনা করেন তৌকীর আহমেদ। এতে সহকারী পরিচালকের দায়িত্ব পান মজনু। ২০০৫ সালেই আবার সাংবাদিকতায় ফেরেন; পাশাপাশি কাজল রশীদ শাহীনের রচনা ও নুরুল আলম মিল্কীর পরিচালনায় মুক্তিযুদ্ধের নাটক ‘লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে’ সহকারী পরিচালকের দায়িত্বের পাশাপাশি ছোট্ট একটি চরিত্রে অভিনয়ও করেন।

একই লেখক-পরিচালকের ‘বৈদেশী’ নামের আরেকটি টিভি নাটকেও সহকারী পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন তিনি। সাংবাদিকতা জীবনে তিনি দৈনিক সংবাদ, আমার দেশ, কালের কণ্ঠ, সকালের খবর, সমকাল, বর্তমান ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল প্রাইমখবর, দ্য রিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকম, পরিবর্তন ডটকমে বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন।

হোসেন শহীদ মজনুর অকপট স্বীকারোক্তি-সাংবাদিকতা ও লেখালেখি ছাড়া অন্যকিছু তিনি পারেন না। ‘জুলাইয়ের প্রেমহীন গল্প’ লেখকের তৃতীয় মৌলিক গ্রন্থ। এর আগে ২০১১ সালে ‘ভূত অথবা ভবিষ্যতের গল্প’ (ছোটগল্প গ্রন্থ) ও ২০০৯ সালে ‘প্রতিধ্বনি কমরেড’ (কবিতা গ্রন্থ) প্রকাশিত হয়। এছাড়াও তার সম্পাদনায় ‘২১টি প্রেমের গল্প’ (২০২১); ‘ছোটদের মজার মজার ভূতের গল্প’ (২০২০) ও ‘নির্বাচিত ছোট গল্প’ (যৌথ সম্পাদনা; ২০১৯) প্রকাশিত হয়েছে।

বই : জুলাইয়ের প্রেমহীন দিনগুলো, প্রকাশক : ভাষাচিত্র, মুদ্রিত মূল্য : ২১৫ টাকা, প্রথম প্রকাশ : জুলাই ২০২২

এমএআর/

Link copied