‘শ্বাস নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে’, মৃত্যুর আগে বলেছিলেন রিফাত

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৬ এপ্রিল ২০২১, ২২:৪৬

‘শ্বাস নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে’, মৃত্যুর আগে বলেছিলেন রিফাত

বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ৭১ টিভির অ্যাসোসিয়েট নিউজ প্রডিউসার রিফাত সুলতানা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) বিকেল পাঁচটার দিকে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে মারা যান তিনি। সন্তানসম্ভবা অবস্থায় ১০ দিন তিনি করোনার সঙ্গে লড়াই করেছেন। আজ (শুক্রবার) সকালে তার সন্তানের জন্ম হয়।

রাত ৯টার পর তার মরদেহ হাসপাতাল থেকে রাজধানীর বারিধারা ডিপ্লোম্যাটিক এলাকায় অবস্থিত ৭১ টিভির প্রধান কার্যালয়ে আনা হয় শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে স্পৃহা নামে ৭১ টিভির এক সহকর্মীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা হয় রিফাত সুলতানার।

সেই সময় স্পৃহাকে রিফাত সুলতানা বলেছিলেন ‘আমার শ্বাস নিতে খুব কষ্ট হচ্ছে স্পৃহা। খুব কষ্ট হচ্ছে।’  শুক্রবার রাত ৯টা ১০ মিনিটে রিফাত সুলতানার মরদেহ ৭১ টিভির প্রধান কার্যালয়ে নিয়ে আসার পর কান্না জড়িত কণ্ঠে কথাগুলো বলেন স্পৃহা।

রিফাত সুলতানার সহকর্মী স্পৃহা বলেন, আপুর সঙ্গে আমার প্রায়ই কথা হতো। হাসপাতালে ভর্তির আগ মুহূর্তে আপুর সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল। তখন আপু আমায় এসব কথা বলছিলেন।

এদিকে ৭১ টিভির কার্যালয়ে রিফাত সুলতানার মরদেহবাহী গাড়িটি কার্যালয়ের সামনে এসে থামলেই কান্নায় ভেঙে পড়েন তার সহকর্মীরা। রিফাত সুলতানার এভাবে চলে যাওয়া মেনে নিতে পারছিলেন না। একাধিক সহকর্মী বলেন, এভাবে করোনার কাছে হেরে রিফাত সুলতানা চলে যাবেন তা মেনে নিতে পারছি না। আমরা মানুষের খবর দিয়ে যাচ্ছিলাম। আমরা নিজেরাই খবর হয়ে গেলাম।

এ সময় রিফাত সুলতানার দীর্ঘ দিনের আরেক নারী সহকর্মী বলেন, ‘কিছু বলার নেই। ১১ বছর একসঙ্গে কাজ করেছি। আমরা চারটা বোনের মতো। আমাদের টিমের একজন আজকে চলে গেছে। আমার কিছু বলার ভাষা নেই।’

রিফাত সুলতানার মৃত্যুর বিষয়ে ৭১ টিভির হেড নিউজ শাকিল আহমেদ বলেন, ‘আমরা বাঁচাতে পারিনি এটাই আমাদের সব থেকে বড় কষ্ট। রিফাত অন্তঃসত্ত্বা ছিল। করোনার চিকিৎসা আমরা করাতে পেরে ছিলাম। কিন্তু অন্তঃসত্ত্বা নারীদের ব্যবস্থা এত কম ঢাকা শহরে। গত চার দিন ধরে হাসপাতাল থেকে হাসপাতালে ছুটেছি।

তিনি আরও বলেন, আমরা বিভিন্নভাবে সহযোগিতার চেষ্টা করেছি। কিন্তু দেরি হয়ে গেছে। ঢাকা শহরে করোনা ও অন্তঃসত্ত্বা হলে যে সঙ্কট হয় সেটারই শিকার হয়েছেন রিফাত। পুরো পরিবারটি আক্রান্ত। তারা বাচ্চাটিও হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। বাচ্চাটার বেঁচে থাকা দরকার।

তিনি বলেন, ৭১ টিভি কর্মী বান্ধব একটি প্রতিষ্ঠান। অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার কারণে রিফাত ছুটিতে ছিলেন। কিন্তু করোনা তার পিছু ছাড়েনি।

এদিকে রিফাত সুলতানার পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ৭১ টিভির প্রধান কার্যালয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর তার মরদেহ নেওয়া বনশ্রীতে তার নিজ বাসায়। পরে রিফাত সুলতানার দাফন হবে বাদ ফজর মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে।

এমএসি/ওএফ

Link copied