আইপি টিভির নিবন্ধনে অ্যাটকোর উদ্বেগ

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:০২ পিএম


আইপি টিভির নিবন্ধনে অ্যাটকোর উদ্বেগ

আইপি টিভির নিবন্ধন দেওয়া শুরু করায় উদ্বেগ জানিয়েছে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল মালিকদের সংগঠন ‘অ্যাটকো’। বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখবেন বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে অ্যাটকোর নেতারা তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের সঙ্গে বৈঠক করে এ উদ্বেগ জানান। পরে অ্যাটকোর জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি ইকবাল সোবহান চৌধুরী এবং তথ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। 

ইকবাল সোবহান চৌধুরী জানান, ‘আইপি টিভির নামে নতুন করে নিবন্ধন দেওয়া হচ্ছে। আমাদের টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে উদ্বেগের কথা জানিয়েছি। এছাড়া মোবাইল সেবাদাতা কোম্পানিগুলো ওটিটি মাধ্যমে যাতে অনুষ্ঠান ও সংবাদ প্রচার করতে না পারে, সে ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতেও তথ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করা হয়েছে।’

তিনি জানান, ‘আমরা বলেছি, আইপি টিভি কোনো টেলিভিশন নেটওয়ার্কের মধ্যে আসে না। এখন প্রায় তিন ডজনের মতো টেলিভিশন চ্যানেল সংবাদ ও অনুষ্ঠান প্রচার করছে। সেখানে আইপি টিভি অনুমোদনের কোনো প্রয়োজন আছে কি না তা ভেবে দেখতে মন্ত্রীকে বলেছি।'

তিনি বলেন, ‘আইপি টিভি যেন এক্সিস্টিং টিভিগুলোর বিকল্প না হতে পারে। আমরা বলেছি, এটি দেওয়ার আগে একটি নীতিমালা হওয়া দরকার, সেটি যেন করা হয়।’

ইকবাল সোবহান বলেন, ‘বর্তমানে মোবাইল ফোন অপারেটররা ওটিটির মাধ্যমে বিভিন্ন অনুষ্ঠান করছে, সংবাদও প্রচার করছে। আমরা বলেছি, তাদের লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে মোবাইল সেবা দেওয়ার জন্য। তাদের কিন্তু ওটিটির মাধ্যমে কোনো অনুষ্ঠানের অনুমোদন দেওয়া হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘মন্ত্রী আমাদের কথা অত্যন্ত সহানুভূতির সঙ্গে শুনেছেন এবং তিনি এ বিষয়ে নির্দেশনা দেবেন বলে আমরা আশা করছি।’ 

এরপর তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, ‘অ্যাটকোর পক্ষ থেকে কয়েকটি বিষয় তোলা হয়েছে। এরমধ্যে একটি হচ্ছে মোবাইল অপারেটরেরা ওটিটি প্ল্যাটফর্ম পরিচালনা করছেন। সেখান থেকে উপার্জন করছে, কনটেন্ট বানাচ্ছে এবং সেগুলো অনলাইনে প্রচার করছে, যেটি তাদের লাইসেন্সের শর্ত ভঙ্গ করে। আমরা বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করব।’

তিনি বলেন, ‘টেলিকম মন্ত্রণালয়, বিটিআরসি এবং একই সঙ্গে মোবাইল অপারেটরদের আমরা নোটিফাই করব যে তারা কেন এটি করছে। তারা যদি নিয়ম বহির্ভূতভাবে এটি করে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ 

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আইপি টিভির রেজিস্ট্রেশন দেওয়া শুরু করেছি মাত্র। আইপি টিভি পৃথিবীর বর্তমান বাস্তবতা। তবে ব্যাঙের ছাতার মতো আইপি টিভি সমীচীন নয়। আইপি টিভির রেজিস্ট্রেশন দেওয়ার প্রয়োজন আছে কি না সে প্রশ্ন অ্যাটকো তুলেছে। আমরা এ বিষয়টিও দেখব।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘আইপি টিভি কোনোভাবেই সংবাদ প্রচার করতে পারবে না। একই সাথে আইপি টিভি কেবলের মাধ্যমে সম্প্রচার করতে পারবে না। তারা শুধু ইন্টারনেটের মাধ্যমেই অনুষ্ঠান প্রচার করতে পারবে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অত্যন্ত যত্নসহকারে আমরা আইপি টিভির বিষয়ে অগ্রসর হতে চাই। আমরা মনে করি, যথেচ্ছভাবে রেজিস্ট্রেশন দেওয়া সমীচীন হবে না।’

এসএইচআর/ওএফ/জেএস

Link copied