আগুন নেভাতে দেশে প্রথমবার রোবটের ব্যবহার

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

০৮ জুন ২০২২, ০৩:৪৮ পিএম


আগুন নেভাতে দেশে প্রথমবার রোবটের ব্যবহার

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আগুন নেভাতে প্রথমবারের মতো অত্যাধুনিক প্রযুক্তির রোবট ব্যবহার করেছে ফায়ার সার্ভিস। এলইউএফ-৬০ (LUF-60) নামক রোবটটি রিমোট কন্ট্রোল দ্বারা পরিচালিত হয়।

বুধবার ফায়ার সার্ভিস জানায়, সীতাকুণ্ডের আগুন নেভাতে দেশে প্রথমবার হাইটেক রোবটের পাশাপাশি বিশেষ ড্রোনও ব্যবহার করা হয়েছে। রোবটটি ৩০০ মিটার দূরত্ব পর্যন্ত পানি ছেটাতে সক্ষম। এটি ধোঁয়া, তাপ ও বিষাক্ত গ্যাস পরিষ্কার করে আগুনের তীব্রতা কমাতে পারে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-মিডিয়া) শাহজাহান সিকদার ঢাকা পোস্টকে বলেন, এ ধরনের মোট দুটি রোবট কিনেছে ফায়ার সার্ভিস। এর মধ্যে একটি যন্ত্র আমরা বুঝে পেয়েছি। সেটিই সীতাকুণ্ডের আগুনে ব্যবহার করা হয়েছে। দ্বিতীয় রোবটটি ক্রেতা প্রতিষ্ঠান এখনো ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরকে বুঝিয়ে দেয়নি। সেটি যুক্ত হলে এ ধরনের সংবেদনশীল পরিস্থিতিতে ফায়ার সার্ভিসের আগুন নেভানোর সক্ষমতা আরও বৃদ্ধি পাবে।

২০১৭ সালে প্রথমবার এ রোবট ক্রয়ের পরিকল্পনা করে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তর। ২০১৯ সালে ক্রয়ের প্রক্রিয়া শুরু হয়। করোনা মহামরির কারণে ক্রয় প্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়। রোবটটি প্রায় ছয় মাস আগে ফায়ার সার্ভিসে যুক্ত করা হয়েছে। যন্ত্রটি প্রতি মিনিটে ২ হাজার ৪০০ লিটার পানি নিক্ষেপ করতে সক্ষম। সংযুক্ত আরব আমিরাত, রাশিয়া, অস্ট্রিয়া, জার্মানি, ভারত ও ইন্দোনেশিয়া আগুন নেভাতে দীর্ঘদিন ধরে এ ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহার করছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে চট্টগ্রাম শহর থেকে ৩০ কিলোমিটার দূরে সীতাকুণ্ডের কদমরসুল এলাকায় বিএম কনটেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। আগুন লাগার ঘণ্টাখানেকের মধ্যে ভয়ংকর বিস্ফোরণ ঘটে। আশপাশে থাকা দমকলকর্মী, শ্রমিকসহ অনেকেই এতে হতাহত হন।

এআর/আরএইচ 

টাইমলাইন

Link copied