বিএনপিকে বিরোধীদল বলা বক্তব্য এক্সপাঞ্জ চান জাপার রাঙ্গা

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

২৭ জুন ২০২২, ০৯:২০ পিএম


বিএনপিকে বিরোধীদল বলা বক্তব্য এক্সপাঞ্জ চান জাপার রাঙ্গা

বিএনপিকে বিরোধী দল আখ্যায়িত করে দেওয়া সংসদ সদস্যের বক্তব্য একপাঞ্জ করার দাবি জানিয়েছেন বিরোধী দল জাতীয় পার্টির চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা। 

সোমবার (২৭ জুন) একাদশ জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশনে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

মসিউর রহমান বলেন, এই সংসদে আমরাই (জাপা) বৃহত্তর বিরোধী দল। এখানে কোনো ভুল নেই। সংসদে অনেক এমপি বিএনপির সমালোচনা করতে গিয়ে দলটিকে বিরোধী দল বলেন। সংসদে আমরাই বৃহত্তর বিরোধী দল। আমরা বিরোধী দল এখানে কোনো ভুল নেই। সংসদ সদস্যরা বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে বিরোধী দল বলেছেন তা একপাঞ্জ করার অনুরোধ করছি।

পদ্মা সেতু নির্মাণের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী অনেক চেষ্টা করে, কষ্ট করে আজকে এই সেতুটি দাঁড় করিয়েছেন। আমার মনে হয় সেতুটি যদি তিনি (প্রধানমন্ত্রী) সম্পন্ন করতে না পারতেন, তাহলে নিজের ক্ষতি নিজেই করে বসতেন। স্পিকার আমি আপনার মাধ্যমে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি প্রধানমন্ত্রীর কাছে। এরকম একটি সম্ভাবনা ওনার মধ্যে আমি দেখেছিলাম যে, এনি হাউ, কষ্ট করে এটা করতে হবে। তিনি এটা করেছেন।

পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে সমালোচনাকারীরা বলেছেন এটা করতে পারবেন না। আসলে এগুলো দেখার সময় ওনার (প্রধানমন্ত্রীর) নেই। তিনি যেভাবে দেশটার উন্নতি করছেন, আরো করবেন, আমরা তা বিশ্বাস করি।

ফোক শিল্পী সংসদ সদস্য মমতাজ বেগমের একটি গানের কলি উল্লেখ করে রাঙ্গা বলেন, বুকটা ফাইট্টা যায়। গানের মতো ওদের বুকটা ফাইট্টা যায়। সে কারণে একবার বলে ভেঙ্গে পড়বে। একবার বলে এই হবে। একবার বলে ওই হবে। কালকে (গতকাল) আমাদের সংসদ সদস্য শাজাহান খান বলেছেন, না হয় নৌকায় যাবেন। নৌকায় আবার কেমনে যায়। এটা তো আরেকটি বিপদ। তাহলে কিসে যাবে।

তিনি বলেন, আমরা মনেপ্রাণে বিশ্বাস করি এ দেশটি আমাদের। এ দেশটা রক্ষার দায়িত্ব আমাদের। এনি হাউ দেশটাকে রক্ষা আমাদের করতে হবে। এজন্য যা করতে হয় আমাদের করতে হবে।

দুর্নীতিবাজদের প্রশ্নে রাঙ্গা বলেন, দুর্নীতিবাজরা আমলা হোক বা রাজনীতিবিদ হোক বা অন্য কেউ হোক, তারা নিজেরাও জানে না তাদের কত টাকা আছে। তাদের সন্তানেরা উশৃঙ্খলে চলে গেছে। খোঁজ নিয়ে দেখেন। সব এমপিদের খোঁজ নিয়ে দেখেন, যারা এর সঙ্গে জড়িত তাদের একটি সন্তানও মানুষ হয়নি।

জাতীয় পার্টির এই সংসদ সদস্য বলেন, আমাদের যতটুকু প্রয়োজন ততটুকু করা দরকার। আমার সংসদে আসতে একটা কোট দরকার, একটা টাই দরকার-এটুকু। আমি যদি এখন বিদেশ থেকে বানিয়ে নিয়ে আসি, বিদেশ থেকে আয়রন করে আনি, বিদেশ থেকে জুতা কালি করে আনি- এগুলো মানুষ পছন্দ করে না।

রংপুরের গংগাচড়া উপজেলার নৌহালী ইউনিয়নের নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের এলাকায় মঙ্গা এখন নেই। তারা এখন বিউটি পার্লার আনতে বলে, ব্যাংক আনতে বলে। খালি পায়ে কোনো নারীকে হাঁটতে দেখি না। নারীরা মানুষের বাসায় কাজ করে না। জমিতে কাজ করে খায়। জমি বর্গা নিয়ে তারা কাজ করে খায়। তাদের স্বামীরা বিছানায় শুয়ে থাকে।

মসিউর রহমান বলেন, মেডিকেলে অনেক দুর্নীতি হয়। বিনা পয়সার সব ওষুধ বাজারে বিক্রি হচ্ছে। এটা কেউ ধরে না। যারা ধরার যেকোনোভাবে হোক ধরে না।

তিনি বলেন, সংসদের ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। আমাদের থাকার জায়গা সংসদ সদস্য ভবনের ফ্লাটগুলো এত সুন্দর হয়েছে যে, আমি যে বাড়ি ভাড়া করে থাকি তা ছেড়ে দিয়ে এখানে থাকব। আমার বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ হিসেবে পাওয়া রুমে গেলেই লাইট জ্বলে ওঠে। বেরিয়ে এলে লাইট বন্ধ হয়ে যায়। 

এইউএ/জেডএস

Link copied