বাসে উঠতে যুদ্ধ, দ্বিগুণ ভাড়ায় বিরক্ত যাত্রীরা

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৬ আগস্ট ২০২২, ০১:৩৬ পিএম


বাসে উঠতে যুদ্ধ, দ্বিগুণ ভাড়ায় বিরক্ত যাত্রীরা

হঠাৎ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে শনিবার সকাল থেকেই রাজধানীতে গণপরিবহন চলাচল কমে গেছে। পরিবহন কম থাকায় তাতে উঠতে যাত্রীদের রীতিমত যুদ্ধ করতে হচ্ছে। আবার বাসে ওঠার সুযোগ পেলেও অতিরিক্ত ভাড়া গুণতে হচ্ছে যাত্রীদের।

রাজধানীর কারওয়ান বাজার, বাংলামোটর ও শাহবাগ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, বাসের জন্য অনেক মানুষ দাঁড়িয়ে আছেন। মাঝে মধ্যে দু-একটি বাস এলেও সেগুলো যাত্রীতে ঠাসা। দু-একজন নেমে গেলে অপেক্ষারতরা বাসে ওঠার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন। দু-একজন বাসে ঠাঁই পেলেও বাকিরা হতাশ হয়ে পরের বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন। দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর হেঁটেই রওনা করেছেন অনেকে।

বাংলামোটর মোড়ে দেখা গেছে, যাত্রীতে ঠাসা শিকড় পরিবহনের একটি বাস আসে। গেটেও কয়েকজন দাঁড়ানো। এরমধ্যেই বাসে ওঠার চেষ্টা করলে চালকের সহকারী বলেন, ১৫ টাকার কম হলে কেউ বাসে উইঠেন না।

 

ওই বাস থেকে নামেন মো. ইয়াসিন। তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর কোনোরকম বাসে উঠেছিলাম। ১০ টাকার ভাড়া ১৫ টাকা নিয়েছে।

তবে, বাস সংকটের কারণে পোয়াবারো রিকশাচালকদের। সুযোগ বুঝে তারাও বাড়িয়েছেন দাম। কারওয়ান বাজার থেকে মাকে নিয়ে বারডেম হাসপাতালে যাওয়ার জন্য বেশ খানিকটা সময় অপেক্ষা করেও সিএনজি মেলেনি হাবিবুর রহমানের। উপায় না পেয়ে বাংলামোটর পর্যন্ত মাকে হাঁটিয়ে নিয়ে আসেন। কয়েকটি রিকশা পাওয়া গেলেও সবাই ৫০ টাকার ওপরে দাম হাঁকেন। হাবিবুর বলেন, এইটুকু জায়গার জন্য ৫০ টাকা ভাড়া! কোন দেশে আছি আমরা। যে যেভাবে পারছে নিচ্ছে।

তানজিনা আহমেদ একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন। যাবেন মহাখালী। শাহবাগে প্রায় ঘণ্টাখানেক দাঁড়িয়েও কাঙ্ক্ষিত বাস পাচ্ছেন না তিনি। সিএনজি ২৫০ টাকার বেশি ভাড়া চাচ্ছে। অনেকটা বিরক্ত হয়ে পাঠাও অ্যাপে যেতে চাইলেও বাইকাররা চুক্তিতে ২০০ টাকা নিচে মহাখালী যেতে রাজি হয়নি। তানজিনা বলেন, বাসে ১৫ ভাড়া টাকা। আর সিএনজিতে ১৫০ টাকায় যাওয়া যায়, সেখানে আরও ১০০ টাকা বাড়তি চাইছে। মোটরসাইকেল চালকরা আরও বেশি চাচ্ছেন।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (৫ আগস্ট) রাত ১২টা থেকে ডিজেল, কেরোসিন, অকটেন ও পেট্রোলের পুনর্নির্ধারিত দাম কার্যকর হয়েছে। ভোক্তা পর্যায়ে খুচরা মূল্য লিটারপ্রতি ডিজেল ও কেরোসিন ১১৪ টাকা, লিটারপ্রতি অকটেন ১৩৫ টাকা ও লিটারপ্রতি পেট্রোল ১৩০ টাকা করা হয়। এতদিন কেরোসিন ও ডিজেল প্রতি লিটার ৮০ টাকা, অকটেন ৮৯ টাকা প্রতি লিটার ও পেট্রোল ৮৬ টাকা প্রতি লিটারে বিক্রি হচ্ছিল।

এনআই/ওএফ

টাইমলাইন

Link copied