উত্তরায় দুর্ঘটনা : ১৮ ঘণ্টায়ও আসেননি কোনো মন্ত্রী-এমপি

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৬ আগস্ট ২০২২, ১১:৪৮ এএম


উত্তরায় দুর্ঘটনা : ১৮ ঘণ্টায়ও আসেননি কোনো মন্ত্রী-এমপি

রাজধানীর উত্তরায় বিআরটি প্রকল্পের ফ্লাইওভারের একটি গার্ডারের চাপায় প্রাইভেটকারে থাকা শিশুসহ পাঁচ জন নিহতের ঘটনায় সমবেদনা জানাতে অন্তত এলাকার সংসদ সদস্যকে প্রত্যাশা করেছিলেন স্থানীয়রা। কিন্তু দুর্ঘটনার ১৮ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও স্থানীয় সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হাবিব হাসান, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কিংবা সরকারের উচ্চপদস্থ কোনো কর্মকর্তাকে সেখানে যেতে দেখেননি এলাকাবাসী। বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন উত্তরার অনেক বাসিন্দা। তবে সংসদ সদস্য দাবি করেছেন, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

মঙ্গলবার (১৬ আগস্ট) উত্তরার জসীমউদ্দীন এলাকায় স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে ক্ষোভের বিষয়টি জানা গেছে।

আরও পড়ুন: উত্তরায় গার্ডার দুর্ঘটনা : রিট করতে বললেন হাইকোর্ট

আশরাফুল ইসলাম হৃদয় নামের ওই এলাকার এক বাসিন্দা বলেন, এখন মানুষের মধ্যে আন্তরিকতা কমে গেছে। বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটলেও কারও যেন দায়ভার নেই। আগে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে সংসদ সদস্যসহ সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে আসতেন, স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলতেন। গতকাল (সোমবার) বিকেল ৪টা থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত ১৮ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কাউকে এখানে আসতে দেখিনি বা শুনিনি। বিষয়টা এমন, যেন কারও দায় নেই।

ইঞ্জিনিয়ার রাশেদ হাসান বলেন, আমাদের এমপি সাহেব মানুষ হিসেবে ভালো। তবে তিনি কেন এখানে আসেননি, সেটা বলতে পারছি না। অন্তত ঘটনাস্থলে এলে তো শুনতাম তিনি এসেছেন। এলাকার অভিভাবক হিসেবে তার এখানে আসা উচিত ছিল। সড়ক পরিবহন মন্ত্রীও এখানে আসেননি। আসলে প্রত্যেক দুর্ঘটনাকেই তারা স্বাভাবিকভাবেই দেখেন, কোনো গুরুত্ব দেন না।

আরও পড়ুন: গার্ডার চাপায় ঝরলো ৫ প্রাণ : দায়িত্বে অবহেলার মামলা

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ঢাকা-১৮ (উত্তরা) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ হাবিব হাসান ঢাকা পোস্টকে বলেন, ‘কোন এলাকাবাসী অভিযোগ দিছে আপনার কাছে। আরে জসীমউদ্দীন রোডে কি আমার এলাকার লোক থাকে নাকি। ওখানে গেছি না আমি, আপনি জানেন কীভাবে ওখানে আমি যাইনি। আপনাদের কাছে মিথ্যা রিপোর্ট দিয়ে দেয়, মিথ্যা কথা বলে। আপনারা ওটা নিয়েই মানুষকে প্রশ্ন করেন। এটা ভুল ধারণা। আপনি খবর নিয়ে দেখেন, আমি গেছি কি না।’

এমএইচএন/এসএসএইচ

টাইমলাইন

Link copied