৬ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ : আশফাক আহমেদের বিরুদ্ধে মামলা

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

০১ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:১৮ পিএম


৬ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ : আশফাক আহমেদের বিরুদ্ধে মামলা

ছয় কোটি টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের পরিচালক আশফাক উদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে সংস্থাটির উপ-পরিচালক মো. গুলশান আনোয়ার প্রধান বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। সংস্থাটির ঊর্ধ্বতন একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

আরও পড়ুন >> ৬ মাসে দুর্নীতিবাজদের ৬৮২ কোটি টাকার সম্পদ ক্রোক-ফ্রিজ

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, আশফাক উদ্দিন আহমেদ মিথ্যা তথ্য-সম্বলিত সম্পদ বিবরণী দুর্নীতি দমন কমিশনে দাখিল করেন। ওই সম্পদ বিবরণীতে তিনি অসাধু উপায়ে অর্জন করা ছয় কোটি ১৫ লাখ ৯৯ হাজার টাকা সম্পদের হিসাবে কোনো বৈধ উৎস দেখাতে পারেননি। বরং অবৈধ অর্থ বারবার ঋণ প্রদান ও গ্রহণের মাধ্যমে লেয়ারিং ঘটিয়ে বৈধ করার আড়ালে হস্তান্তর, রূপান্তর ও স্থানান্তরের মাধ্যমে অর্থের অবস্থান গোপন করার চেষ্টা করেছেন।

দুদক আইন ২০০৪ এর ২৬ (২) ও ২৭ (১) ধারাসহ মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন ২০১২ এর ৪ (২) ও (৩) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

dhakapost

এজাহারে আরও বলা হয়েছে, আশফাক উদ্দিন আহমেদ ওই বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোসাদ্দেক আলী হতে অগ্রীম ঋণ নেওয়া বাবদ দেখিয়েছেন নয় কোটি ৫৭ লাখ ১০ হাজার টাকার। মোহম্মদ মোসাদ্দেক আলীর বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে দুদক কর্তৃক অবৈধ সম্পদের মামলা এবং পরবর্তীতে চার্জশিটও আদালতে প্রদান করা হয়েছে। যা বিশেষ জজ আদালতে বিচারাধীন।

আরও পড়ুন >> যোগ-বিয়োগের কারসাজিতে কোটি কোটি টাকা লোপাট!

এছাড়া ২০০৮ সাল থেকে মোহম্মদ মোসাদ্দেক আলী দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। সুতরাং তার কাছ থেকে ঋণ গ্রহণ করা দেখানো হয়েছে। যা প্রকৃতপক্ষে আশফাক উদ্দিন আহমেদের অবৈধ সম্পদকে বৈধতার দেওয়ার চেষ্টা মাত্র।

এসব ঘটনার সময়কাল ধরা হয়েছে ২০০৮ সালের জানুয়ারি থেকে ২০২২ সালের জুলাই পর্যন্ত। ২০২০ সালের নভেম্বর থেকে তার বিরুদ্ধে অনুসন্ধান চলমান ছিল।

আরএম/এমএআর/

 

Link copied