প্রকল্পের যানবাহনের অবৈধ ব্যবহার : পরিবহন পুলে জমা দেওয়ার নির্দেশ

Shahadat Hosen (Rakib)

১০ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:৫৭ এএম


প্রকল্পের যানবাহনের অবৈধ ব্যবহার : পরিবহন পুলে জমা দেওয়ার নির্দেশ

যেসব উন্নয়ন প্রকল্প শেষ হয়েছে সেসব প্রকল্পের জন্য কেনা গাড়ি ৬০ দিনের মধ্যে সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরের অধীন কেন্দ্রীয় পরিবহন পুলে জমা দেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। সরকারের এ নির্দেশনা মানছেন না অনেক প্রকল্প পরিচালক। এ ইস্যুতে নড়েচড়ে বসেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। শেষ হওয়া প্রকল্পগুলোর যানবাহন পরিবহন পুলে জমা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। 

এ সংক্রান্ত একটি পরিপত্রের নির্দেশনা অনুযায়ী গাড়ি ফেরত দিতে সম্প্রতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সব মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন>>লোকবল নিয়োগ-গাড়ি কিনতেই শেষ প্রকল্পের মেয়াদ

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব জেতী প্রুর সই করা চিঠিতে বলা হয়, শেষ হওয়া উন্নয়ন প্রকল্পের যানবাহন সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরের অধীন কেন্দ্রীয় পরিবহন পুলে জমা দিতে হবে। এ সম্পর্কিত বিষয়ে জারি করা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ২০০৬ সালের ৮ জানুয়ারির পরিপত্র যথাযথভাবে অনুসরণ করে প্রকল্পের সব যানবাহন সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরে জমা দেওয়ার কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। মন্ত্রণালয়ভিত্তিক টিওঅ্যান্ডই বহির্ভূত বা টিওঅ্যান্ডইভুক্ত যানবাহনের তথ্যাদি পাঠানোর জন্য অনুরোধ করা হলো।

জানতে চাইলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব জেতী প্রু ঢাকা পোস্টকে বলেন, যেসব মন্ত্রণালয় ও বিভাগের অধীনে প্রকল্প আছে কিংবা ছিল, সেসব মন্ত্রণালয় ও বিভাগে আমরা চিঠি পাঠিয়েছি। ২০০৬ সালে যে পরিপত্র জারি করা হয়েছে সেটি আমাদেরকে প্রতিপালিত করতে হয়। সেজন্যই এই চিঠি দেওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুন>>অপ্রয়োজনে অফিস ও গাড়ি ভাড়ায় বিস্মিত সচিব

২০০৬ সালের ৮ জানুয়ারি জারি করা ‘সমাপ্ত উন্নয়ন প্রকল্পের যানবাহন সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরের অধীন কেন্দ্রীয় পরিবহন পুলে জমাকরণ, ব্যবহার ও নিষ্পত্তি’র পরিপত্রে মোট ১০টি নির্দেশনা দেওয়া হয়। 

এতে বলা হয়, শেষ হওয়া উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক প্রকল্প সমাপ্তির ৬০ দিনের মধ্যে প্রকল্পের সব সচল যানবাহন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অধীন সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরের কেন্দ্রীয় পরিবহন পুলে জমা দেবেন। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যানবাহন জমা না হলে সরকারি যানবাহন অধিদপ্তর বিষয়টির জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে জানাবে।

আরও পড়ুন>>শুধু পরামর্শকের জন্য সাড়ে ২২ কোটি চায় এলজিইডি

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রকল্প শেষ হওয়ার সর্বোচ্চ ছয়মাসের মধ্যে প্রকল্পের অচল যানবাহন নীতিমালা অনুযায়ী বিক্রি করে অর্থ সরকারের সংশ্লিষ্ট খাতে জমা দিতে হবে। এরপর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ ও সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরকে বিষয়টি জানাতে হবে।

প্রকল্প পরিচালক প্রকল্প শেষ হওয়ার ৯০ দিন আগে প্রকল্পের শ্রেণিভিত্তিক যানবাহনের সংখ্যা, অবস্থান এবং বর্তমান অবস্থা (সচল/অচল) বিস্তারিতভাবে উল্লেখ করে একটি পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন আইএমইডির কাছে দাখিল করবেন। এরপর সেই অনুলিপি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও সরকারি যানবাহন অধিদপ্তরে পাঠাবেন।

আরও পড়ুন>>সরকারি গাড়ি কেনার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

পরিপত্রে আরও বলা হয়, প্রকল্প শেষ হওয়ার পর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রকল্পের যানবাহন কেন্দ্রীয় পরিবহন পুলে জমা না দিলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বা মন্ত্রণালয়ের ওই প্রকল্প পরিচালকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এক্ষেত্রে অন্য কেউ দায়ী হলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা ঢাকা পোস্টকে বলেন, প্রকল্প শেষ হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে প্রকল্পের সব সচল যানবাহন কেন্দ্রীয় পরিবহন পুলে জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশনা আছে। এ নির্দেশনা অনেক প্রকল্প পরিচালক মানেন না। এজন্য এর আগেও পরিপত্রের নির্দেশনাগুলো মানতে সংশ্লিষ্টদের কয়েকবার চিঠি দেওয়া হয়েছিল। 

আরও পড়ুন>>গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রাণ গেল বিএডিসির প্রকল্প পরিচালকের

ওই কর্মকর্তা আরও বলেন, জমা না দেওয়া গাড়ি প্রকল্প পরিচালক, বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের কর্মকর্তারা অবৈধভাবে ব্যবহার করছেন বলে আমরা প্রায়ই তথ্য পাই। এক্ষেত্রে বর্তমানে সরকারের রাষ্ট্রীয় কৃচ্ছতা সাধন প্রচেষ্টা ব্যাহত হয়। সেজন্যই মূলত এ চিঠি দেওয়া হয়েছে।

এদিকে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে নিজেদের অধীন বিভিন্ন অধিদপ্তর, দপ্তর এবং সংস্থার প্রধানকে যানবাহন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিচ্ছে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ। এর মধ্যে গত ৪ জানুয়ারি নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় তাদের অধীন প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানদেরকে চিঠি পাঠিয়েছে। 

মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব মো. আলাউদ্দিনের সই করা চিঠিতে বলা হয়, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের চাওয়া অনুযায়ী সমাপ্ত উন্নয়ন প্রকল্পের যানবাহন জরুরি ভিত্তিতে মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়ার অনুরোধ করা হলো।

এসএইচআর/কেএ

Link copied