ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাস্টমস গর্বিত অংশীদার

Dhaka Post Desk

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক

২৬ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:০১ পিএম


ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাস্টমস গর্বিত অংশীদার

ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাস্টমস গর্বিত অংশীদার বলে জানিয়েছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে ‘আন্তর্জাতিক কাস্টমস দিবস-২০২২’ উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনারে তিনি এ কথা বলেন।

এবারের কাস্টমস দিবসের মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘তথ্য সংস্কৃতি বিকাশ এবং তথ্য ইকোসিস্টেম বিনির্মাণের মাধ্যমে ডিজিটাল কাস্টমসের সম্প্রসারণ’।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নে কাস্টমস একটি গর্বিত অংশীদার। করোনাভাইরাসের অতিমারি পরিস্থিতি কাটিয়ে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে বাংলাদেশ কাস্টমসের আন্তরিক ভূমিকা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। দক্ষতা, সময়ানুবর্তিতা ও নিরলস সাহসি সেবা প্রদানে বাংলাদেশ কাস্টমসের এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকুক এটাই প্রত্যাশা করি। বাংলাদেশের নিজস্ব যে বাজেট পেশ করা হচ্ছে তাতে এনবিআর এবং বাংলাদেশ কাস্টমস গুরুত্বপূর্ণ একটা ভূমিকা রাখছে।

তিনি বলেন, মানি লন্ডারিং প্রতিরোধের লক্ষ্যে ২০১২-১৩ অর্থ বছরে পোর্টাল ওয়ার্ড সিস্টেম চালু করা হয় যা ২০২০-২১ অর্থ বছরে হালনাগাদ করা হয়েছে। এছাড়াও ঝক্কি-ঝামেলা এড়াতে অনলাইনে শুল্ক পরিশোধের সুবিধার্থে যুক্ত করা হয়েছে ‘ই-পেমেন্ট’ সুবিধা।

নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক বাণিজ্য সহজায়নের জন্য পেপারলিস্টেড বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে একটি বিশেষায়িত অনলাইন প্ল্যাটফর্ম, ন্যাশনাল সিঙ্গেল উইন্ডো বাস্তবায়নের বহুমাত্রিক কার্যক্রম চলমান রয়েছে। পণ্যের মানোন্নয়ন নিশ্চিতে গবেষণা, উদ্ভাবনীমূলক কাজ, নকল ও ভেজাল পণ্যের আমদানি রোধসহ নেওয়া হয়েছে বেশ কিছু উদ্যোগ। স্থিতিশীল রাজস্ব কাঠামো বাস্তবায়নে ও কাস্টম বিভাগের আধুনিকায়ন নিশ্চিতে শুল্ক মূল্যায়ন ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন বিষয় যাচাই করা হচ্ছে। সেই সঙ্গে সব তথ্য যুক্ত করা হয়েছে অনলাইনে ‘সিস্টেম ডাটা শেয়ারিং’ প্রযুক্তির মাধ্যমে। যার ফলে দ্রুততর হয়েছে চট্টগ্রাম কাস্টমসে পণ্য খালাসের কাজ।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকারি কর্মকর্তাদের দৃষ্টিভঙ্গির আমূল পরিবর্তন হয়েছে। কর্মকর্তারা উন্নয়নের ক্ষেত্রে যেমন ভূমিকা রাখছেন পাশাপাশি জনগণের সঙ্গে তাদের সম্পর্কে আরো মসৃণ হচ্ছে। এটা সম্ভব হচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ডায়নামিক লিডারশিপের কারণে।

তিনি বলেন, দেশের সরকারি কর্মকর্তারা যেকোনো কাজ বাস্তবায়নে বিদেশিদের সাপোর্ট নিতো, সেখানে বাংলাদেশে পদ্মাসেতু, কর্ণফুলী টানেল, মাতারবাড়িসহ অনেক বড় বড় মেগা প্রজেক্ট বাংলাদেশে হচ্ছে। এটা নেতৃত্ব দিচ্ছে আমাদের সরকারি কর্মকর্তারা।

এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বারস অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (এফবিসিসিআই) প্রেসিডেন্ট মো. জসিম উদ্দিন।

এইউএ/এসএম

Link copied