যতবারই নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে ততবারই বিএনপি ক্ষমতায় এসেছে

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৪ জুলাই ২০২২, ০৮:১৯ পিএম


যতবারই নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে ততবারই বিএনপি ক্ষমতায় এসেছে

দেশে যতবারই নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে ততবারই বিএনপি ক্ষমতায় এসেছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস।

তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনে বিএনপি যাবে যদি শেখ হাসিনা না থাকেন, তাকে ক্ষমতায় রেখে বাংলাদেশে কোনো সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হতে পারে না।

সোমবার (৪ জুলাই ) সন্ধ্যায় খিলগাঁওয়ে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ওয়ার্ড বিএনপির সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মানুষ যখন ভোট দেওয়ার সুযোগ পেয়েছে খালেদা জিয়াকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বানিয়েছেন।

আরও পড়ুন : বিশ্বের সবচেয়ে দুঃখী দেশের তালিকায় সপ্তম বাংলাদেশ

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করে বিএনপির এ নেতা বলেন, যে নির্বাচন কমিশন কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে একজন বিনা ভোটের সংসদ সদস্যকে সামাল দিতে পারে না, সেই কমিশন জাতীয় নির্বাচনে ৩০০ জন ভোট ডাকাতকে কীভাবে সামলাবেন?

ফেনী, সিলেট সুনামগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিএনপির ত্রাণ কার্যক্রমে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা সন্ত্রাসীদের হামলা করছে বলে দাবি করে আব্বাস বলেন, বিএনপি গুণ্ডামি করে না, সন্ত্রাস করে না, কিন্তু আঘাত যদি আসে পাল্টা আঘাত করতে দ্বিধা করে না।

অনুষ্ঠানে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম বলেন, দেশের মানুষ যখন পানিতে ভাসে তিনি তখন সংসদে, পদ্মা সেতুতে সংগীতের আয়োজন করেন। দুর্গত মানুষের পাশে তিনি বা তার সরকারের কেউ নেই। মানুষ ত্রাণ পাচ্ছে না অথচ পদ্মা সেতুতে আসা তার দলীয় নেতাকর্মীদের জন্য কোটি কোটি টাকা অপচয় করে টয়লেট বানান।

আরও পড়ুন : করোনায় মৃত্যু এক লাফে ১২

সম্মেলনে ১ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি এম জামান, সাধারণ সম্পাদক মো.হুমায়ন কবীর, সাংগঠনিক সম্পাদক হাজী মো. কামাল উদ্দিন, ২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মো. সাজ্জাদুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুল ইসলাম কবীর, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আমির হোসেন সরদার, ৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মো. আবুল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মো. রফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মাইনুদ্দিন মাইনু আলোচনার মাধ্যমে নির্বাচিত হয়।

সম্মেলনে মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু, যুগ্ম আহ্বায়ক মোশাররফ হোসেন খোকন, লিটন মাহমুদ উপস্থিতি ছিলেন ।

এএইচআর/এসকেডি

Link copied