অলি-গলিতে সতর্ক অবস্থানে আওয়ামী লীগ

Dhaka Post Desk

নিজস্ব প্রতিবেদক

০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৪২ পিএম


অলি-গলিতে সতর্ক অবস্থানে আওয়ামী লীগ

রাজধানীতে বিএনপি-পুলিশের সংঘর্ষের পর বিভিন্নস্থানে মহড়া দিচ্ছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। বিকেল থেকেই আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছেন। আবার বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ মিছিলও করেছেন তারা।

আগামী ১০ ডিসেম্বর সমাবেশকে কেন্দ্র করে বুধবার (৭ ডিসেম্বর) নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ পরিস্থিতিতে রাজপথে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মহড়া বাড়তি উত্তাপ ছড়াচ্ছে। 

আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগরের নেতাকর্মীরা এরই মধ্যে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন। তারা বিএনপির পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন। 

এদিন সন্ধ্যায় পল্টন ও বিজয় নগরে পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নৈরাজ্যের প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগ। এতে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-৫ আসনের প্রয়াত এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লার জ্যেষ্ঠ পুত্র মশিউর রহমান মোল্লা সজল, বৃহত্তর ডেমরা থানা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কৌশিক আহমেদ জসিম, ৪৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ৪৮ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শরিফ উদ্দিন, ৪৯ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কৃষক লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক হাসান মাহমুদ অপু ও নজরুল ইসলাম নিপু, ৪৯ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. সজীব হোসেনসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এদিকে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের গ্রন্থনা ও প্রকাশনা সম্পাদক কে এম মনোয়ারুল ইসলাম বিপুলের নেতৃত্বে শেওড়াপাড়া এলাকায় একটি বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। বর্তমানে নেতাকর্মীরা সেখানে অবস্থান করছেন। 

জানতে চাইলে বিপুল ঢাকা পোস্টকে বলেন, আমরা আগের সব পর্যালোচনা বিশ্লেষণ করে বলতে চাই বিএনপি, জামায়াত একটি সন্ত্রাসী রাজনৈতিক দল। যারা ধারাবাহিকভাবে এদেশের শান্তিকামী মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে অগ্নিসন্ত্রাস ও নৈরাজ্যের মধ্য দিয়ে অস্থিতিশীল রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়। এরই ধারাবাহিকতায় আজকে নয়াপল্টনে পুলিশের ওপরে সন্ত্রাসীরা হামলা চালায়। এসব সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আমাদের শান্তিপূর্ণ অবস্থান অব্যাহত থাকবে। 

অন্যদিকে ছাত্রলীগের সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক আল আমিন শেখের নেতৃত্বে গুলিস্তানে একটি মিছিল অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি গুলিস্তান জিরো পয়েন্ট থেকে শুরু হয়ে পল্টন মোড় পর্যন্ত গিয়ে শেষ হয়। এসময় ছাত্রলীগের সাবেক নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
 
আল আমিন শেখ বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রক্তে পদচিহ্ন এঁকে পাকিস্তান গংদের প্রত্যক্ষ মদদে বিএনপি নামক খুনি, সন্ত্রাসী, দেশবিরোধী এক অন্ধকারাচ্ছন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের জন্ম। ওরা গণতন্ত্রকে হত্যা করে ছাত্রদলের নামে একটি গৃহপালিত সন্ত্রাসী সংগঠন গঠনের মাধ্যমে এদেশের ছাত্ররাজনীতির গর্বিত ইতিহাসকে ভূলুণ্ঠিত করেছে। এদেশের দুর্বার অগ্রযাত্রা রুখতেই ওদের গণজমায়েতের নামে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের পরিকল্পনার ধাপ হলো ১০ ডিসেম্বর। আমরা শিক্ষা, শান্তি আর প্রগতির ছাত্রলীগ ওদের ষড়যন্ত্র রুখে দিতে রাজপথে আছি। 

এমএসআই/কেএ

Link copied